184873

বন্ধু তামিমকে কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন সাকিব

দুই বন্ধু বাংলাদেশ জাতীয় দলের দুই বড় তারকা। বিপিএলে দুই দলের অধিনায়ক।

ফাইনালে ওঠার দৌঁড়ে তামিম ইকবালের দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে বড় চ্যালেঞ্জই ছুড়ে দিল সাকিব আল হাসানের দল ঢাকা ডায়নামাইটস। এভিন লুইস, জো ড্যানলি, কায়রন পোলার্ড আর শহীদ আফ্রিদির ছোট তিনটি ঝড়ো ইনিংসে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৯১ রান তুলেছে ঢাকা ডায়নামাইটস।
এই ম্যাচে যে দল জিতবে সরাসরি চলে যাবে ১২ তারিখের ফাইনালে। যারা হারবে তারা ১০ ডিসেম্বর দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলবে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খেয়েছিল ঢাকা। দলীয় ১১ ররানে হাসান আলীর বলে ক্যাচ দেন মেহেদী মারুফ (৬)। তবে এরপরই ঘুরে দাঁড়ায় স্বাগতিকরা। জো ড্যানলিকে সঙ্গী করে নির্দয় ব্যাটিং শুরু করেন এভিন লুইস। ৩২ বলে ৬ চার ৩ ছক্কায় ৪৭ রান করে লুইস শোয়েব মালিকের বলে বোল্ড হয়ে যান।

ভাঙে ৬৯ রানের দারুণ এক জুটি।
জো ড্যানলিও ২৫ বলে ৩২ রানের ঝড়ো এক ইনিংস খেলে রান-আউট হয়ে যান। কায়রন পোলার্ড বড় ইনিংসের সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন। কিন্তু ১৮ বলে ৩২ রানের ছোট এক ঝড় তুলে ব্র্যাভোর বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন। ব্র্যাভোর দ্বিতীয় শিকার হন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ৮ বলে ৯ রান করা সাকিবও ক্যাচ দেন লিটন দাসের কাছে। ৩ রান করা মোসাদ্দেক হাসান আলীর দ্বিতীয় শিকার হন।

বিপদে পড়া ঢাকা শহীদ আফ্রিদির ব্যাটে স্বপ্ন দেখছিল। ৪টি দুর্দান্ত ছক্কাও হাঁকালেন। সবাই যখন ভাবছিল দিনের প্রথম খেলায় গেইলের মত ছক্কা বৃষ্টির কথা, ঠিক তখনই ১৯ বলে ৩০ রান করা আফ্রিদিকে তৃতীয় শিকারে পরিণত করলেন হাসান আলী। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ঢাকার সংগ্রহ দাঁড়ায় ৭ উইকেটে ১৯১ রান।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *