353532

বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা!

নিউজ ডেস্ক।। কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় সুমন মিয়া নামের এক মাদকাসক্ত স্বামী তার আরেক মাদকাসক্ত বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করেছেন।

বন্ধুর নাম সাদ্দাম হোসেন। তাদের দুজনরকেই পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন সুমন। গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার ধামঘর ইউনিয়নের পরমতলা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, উপজেলার পরমতলা গ্রামের বাসিন্দা মনু মিয়ার (মৃত) মেয়ে আখি আক্তারকে (২৮) গত ১২ বছর আগে বিয়ে করেন দেবিদ্বার উপজেলার রাজামেহার গ্রামের শহীদ মিয়ার ছেলে সুমন মিয়াকে। বিয়ের কিছুদিন পর আখি টের পান, তার স্বামী মাদকাসক্ত। তাকে ফিরিয়ে আনতে স্বজনদের নিয়ে চেষ্টা অব্যাহত রাখেন আখি। তাদের দুটি সন্তান রয়েছে। অনেক চেষ্টার পরও সুমনকে মাদক সেবন থেকে ফিরিয়ে আনতে পারছিলেন না আখি।

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় নিজের ঘরে সাদ্দামকে নিয়ে মাদক সেবন করছিলেন সুমন। এ সময় আখি তাকে বাধা দেন। একে ক্ষীপ্ত হয়ে সুমন ও তার বন্ধু সাদ্দাম এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আখিকে গুরতর জখম করেন। ঘটনার সময় আখির ডাক-চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আখিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। শনিবার রাত দেড়টায় চিকিৎসারত অবস্থায় হাসপাতালেই তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় আজ রোববার বিকেলে নিহতের মা খোরশেদা বেগম (৫৫) বাদী হয়ে মুরাদনগর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মুরাদনগর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবু হেনা মোহাম্মদ মোস্তফা রেজা দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, ‘মাদক সেবনে বন্ধুর সামনে বাধা দেওয়ায় সুমন মিয়া তার স্ত্রী আখি আক্তারকে বটি-দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনার সময় সাদ্দাম হোসেন তাকে সহায়তা করে। হত্যার কথা স্বীকার করেছেন সুমন। আগামীকাল সোমবার তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।’

 

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *