352232

‘কলেজে আমাকে নানা উছিলায় স্পর্শ করেন স্যার, রাতে একদিন…’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শিক্ষকের যৌন হেনস্থার জেরে অপমানে কলেজ ছেড়ে দিলেন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া এক ছাত্রী। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম বর্ধমানের নজরুল সেন্টেনারি পলিটেকনিক কলেজে এমন ঘটনা ঘটেছে। গেল বছর অক্টোবরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ জানিয়েছিলেন ওই ছাত্রী।

গত ৮ অক্টোবর ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ওই ছাত্রী কলেজ ও কারিগরি শিক্ষাদপ্তরে লিখিত অভিযোগ জানান। বলেন, শুরু থেকেই তাকে ‘টার্গেট’ করেন শিক্ষক অভিষেক বেরা।

ওই তরুণী জানান, ‘কলেজে নানা উছিলায় আমাকে স্পর্শ করেন স্যার। খুব খারাপভাবে তাকান। যৌনতার কথা বলেন। শুরুতে আমি হোস্টেলে থাকতাম। রাতে একদিন ফোন করে প্রেমের প্রস্তাব দেন। দিদিদের পরামর্শে স্যারের নম্বর আমি ব্লক করে দিই। ভয়ে আমি হোস্টেল ছেড়ে মেসে থাকতে শুরু করি।’

তবে এতেও যৌন হেনস্তা বন্ধ হয়নি। সেমিস্টার পরীক্ষায় শিক্ষক অভিষেক বেরা পুনরায় অসদাচার করেন। নিজের ক্ষমতা জাহির করে ওই ছাত্রীকে শেষ বেঞ্চে বসতে বাধ্য করতেন। পরীক্ষা চলাকালীন চটুল কথা বলতেন।

এদিকে প্রতিষ্ঠানটির আইসিসি (ইন্টার্নাল কমপ্লেন কমিটি)-র রিপোর্টে দোষী সাব্যস্ত হন শিক্ষক। শিক্ষককে সাসপেন্ড করা হয়। করোনা সতর্কতায় এখনও রাজ্যের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। কিন্তু রেজিস্ট্রেশন চলছে। তবে ওই ছাত্রী নতুন শিক্ষাবর্ষে রেজিস্ট্রেশন করেননি। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফারুক আলী সম্প্রতি ছাত্রীকে ফোন করেছিলেন। তাকে ওই ছাত্রী জানিয়েছেন, ওই কলেজে তিনি আর যাবেন না।

জানা গেছে, অভিযুক্ত শিক্ষককে ওই কলেজে আবার ফেরানোর সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তা জানার পরেই ওই ছাত্রী কলেজ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
উল্লেখ্য, বারুইপুর এবং জলপাইগুড়ি পলিটেকনিকেও আগে একই ঘটনা হয়েছে। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

 

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *