350232

সৌদির গোপন তথ্য ফাঁস, অভিবাসীদের ওপর পাশবিক নির্যাতন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বৈধ কাগজপত্র না থাকায় সৌদির আরবের একটি নির্বাসন কেন্দ্রে কয়েকশ বন্দি অভিবাসীর ওপর অমানবিক নির্যাতন চালানো হচ্ছে, এমন উদ্বেগজনক তথ্য প্রকাশ করেছে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ- এইচআরডব্লিউ।

মঙ্গলবারের প্রকাশিত প্রতিবেদনে মানবাধিকার সংস্থাটি জানিয়েছে, রিয়াদের নির্বাসন কেন্দ্রটিতে বন্দিদের মধ্যে বেশিরভাগই ইথিওপিয়ার নাগরিক। এছাড়া আফ্রিকা এবং এশিয়ার আরও কয়েকটি দেশের নাগরিকও। মূলত বসবাসের বৈধ কাগজপত্র না থাকার কারণেই তাদের গ্রেফতার করেছে সৌদি কর্তৃপক্ষ।

প্রতিবেদনে এসেছে, তাদেরকে ছোট জায়গায় গাদাগাদি করে রাখায় সেখানে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি রয়েছে। ইতিমধ্যে কয়েকজনের মধ্যে সংক্রমণের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে বলেও জানা গেছে। এমন পরিস্থির মধ্যেই সেখানে চলছে অমানবিক নির্যাতন। নির্যাতনের মুখে নির্বাসনকেন্দ্রটিতে বেশ কয়েকজন অভিবাসী মৃত্যু হয়েছে।

এইচআরডব্লিউ বলছে, নির্বাসনকেন্দ্রটিতে বন্দিদের মধ্যে বেশিরভাগই ইথিওপিয়ার নাগরিক। গণমাধ্যম আল-জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, এদের মধ্যে আফ্রিকা এবং এশিয়ার আরও কয়েকটি দেশের নাগরিকও আছে। নির্বাসনকেন্দ্রের বেশ কয়েকজন বন্দির সঙ্গে কথা বলেছে এইচআরডব্লিউ’র অনুসন্ধানী দল।

ক’জন বন্দিদের দেয়া তথ্যমতে, নিরাপত্তারক্ষীরা প্রায়ই তাদের লোহার রড দিয়ে পেটান। নির্যাতনের শিকার হয়ে গেল অক্টোবর-নভেম্বরের মধ্যে নির্বাসন কেন্দ্রে অন্তত তিন বন্দির মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বন্দিদের মধ্যে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো দুই নাগরিক জানান, নির্বাসনকেন্দ্রটিতে অন্তত ৩৫০ জন বন্দি ছিলেন। তবে এখন কতজন রয়েছেন তা নির্দিষ্ট করে বলতে পারেনি তারা।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের শরণার্থী ও অভিবাসী অধিকার বিষয়ক গবেষক নাদিয়া হার্ডম্যান বলেন, বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশ সৌদি আরবের কাছে মহামারির মধ্যে অভিবাসীদের মাসের পর মাস আটকে রাখার কোনো ব্যাখ্যা দাঁড় করাতে পারে না। মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে রিয়াদের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *