352420

শুরু হচ্ছে সিসিমপুরের নতুন মৌসুম

নতুন বছরের শুরুতেই শুরু হচ্ছে শিশুদের প্রিয় অনুষ্ঠান সিসিমপুরের নতুন মৌসুম, সিজন-১৩। আগামী ২২ জানুয়ারি, শুক্রবার থেকে সিজন-১৩ এর আনকোরা পর্বগুলো শিশুরা দেখতে পাবে তিন টেলিভিশনের পর্দায়।

নতুন সিজনের পর্বগুলোতে শিশুদের খেলার মাধ্যমে শেখাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে যা শিশুর বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। নতুন এই সিজনে শিশু ও তার পরিবারকে কোভিড-১৯ মহামারি মোকাবিলা করার বিষয়েও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া নতুন সিজনের পর্বগুলোতে সিসিমপুরের চরিত্র গ্রোভার ও রায়া খেলতে খেলতে শেখার নানা বিষয় নিয়ে হাজির হবে শিশুদের সামনে। আর সিসিমপুরের জনপ্রিয় চরিত্র ইকরি তার বন্ধুদেরকে বাংলা বর্ণমালা লিখতে শেখাবে। মজার এনিমেশন, স্যান্ডআর্ট ও গ্রাফিক্সের মাধ্যমে শিশুরা শিখবে বাংলা বর্ণ ও শব্দ। পাশাপাশি সিজন-১৩ তে শিকুর ‘বলতে পারো’ সেগমেন্টকে ঢেলে সাজানো হয়েছে। এছাড়া নিয়মিত পর্ব স্বাস্থ্যকর অভ্যাস, পরিবেশের যত্ন, সামাজিক ও আবেগিক দক্ষতা বিষয়ক দারুণ মজার সব গল্পতো থাকছেই। থাকছে ৩ থেকে ৮ বছর বয়সি শিশুদের জন্য আরও অনেক নতুন বিষয়।

আগামী শুক্রবার থেকে বিটিভি, দুরন্ত টেলিভিশন এবং মাছরাঙা টেলিভিশনে সিসিমপুরের সিজন-১৩ প্রচার শুরু হবে। প্রতি শুক্রবার দুরন্ত টিভিতে সকাল ৮টায়, মাছরাঙা টেলিভিশনে সকাল ৯টায় এবং বিটিভিতে সকাল ১০টা ১০ মিনিটে প্রচারিত হবে সিসিমপুরের নতুন পর্বগুলো।

ভার্চুয়াল এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সিসিমপুর সিজন-১৩ উদ্বোধন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো: জাকির হোসেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মহিউদ্দিন আহমেদ, বিটিভি’র মহাপরিচালক এস এম হারুন-অর-রশীদ, মাছরাঙা টেলিভিশনের নির্বাহী পরিচালক অজয় কুমার কুণ্ডু, দুরন্ত টেলিভিশনের পরিচালক অভিজিৎ চৌধুরী, ইউএসএআইডি’র এডুকেশন টিম লিডার নিকোলাস ভিভিও, এশিয়াটিকের ভাইস চেয়ারম্যান সারা যাকের, সিসেমি ওয়ার্কশপ বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ শাহ আলম এবং সিসিমপুরের বন্ধু খুশি, ইকরি, শিকু, টুকটুকি, হালুম, রায়া ও গ্রোভার।
‘সিসিমপুর’ বিশ্বখ্যাত মার্কিন টেলিভিশন অনুষ্ঠান ‘সিসেমি স্ট্রিট’-এর বাংলাদেশি সংস্করণ। শিশুদের ভাষা, সাক্ষরতা, গণিত, সামাজিক, মানসিক ও মানবিক দক্ষতা বিকাশের জন্য ‘সিসেমি স্ট্রিট’ কাজ করছে বিশ্বের দেড় শতাধিক দেশে।

প্রাক-প্রাথমিক শিশু বিকাশ কার্যক্রমের আওতায় ‘সর্বত্র শিশুরা হয়ে উঠুক আরও সম্পন্ন, আরও সবল এবং আরও সদয়’ এই লক্ষ্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে ‘সিসিমপুর’-এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান সিসেমি ওয়ার্কশপ। বাংলাদেশে সিসিমপুরের সকল কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয় ইউএসএআইডি’র আর্থিক সহায়তায়। সিসিমপুর অনুষ্ঠানটি সম্প্রচারে সহায়তা করছে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং বিদ্যালয়ভিত্তিক কার্যক্রমে সহায়তা করছে প্রথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

 

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *