350430

‘পাকিস্তানে হামলার প্রস্তুতি ভারতের’, দাঁতভাঙা জবাবের হুঁশিয়ারি

পাকিস্তানের মাটিতে প্রবেশ করে দেশটির বিরুদ্ধে সামরিক হামলার পরিকল্পনা করছে ভারত। এমন অভিযোগ তুলে পরমাণু শক্তিধর প্রতিবেশী দু’দেশের মধ্যকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সহায়তার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইসলামাবাদ।

শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) সংযুক্ত আরব আমিরাতের রাজধানী আবুধাবিতে সাংবাদিকদের পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরিশ হুঁশিয়ার করে বলেন, হামলা চালানো হলে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে।

বলেন, গোয়েন্দা সংস্থাগুলো জানিয়েছে, ভারত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর পরিকল্পনা করছে। তারা এ বিষয়ে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছে। আন্তর্জাতিক মিত্রদের কাছ থেকে অনুমতি নেওয়ার চেষ্টা করছে নয়াদিল্লি।

১৯৪৭ সালে ব্রিটেন থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর তিনদফা যুদ্ধে জড়িয়েছে ভারত পাকিস্তান। নানা কারণে দু’পক্ষের মধ্যে অব্যাহতভাবে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে দু’দেশের সামরিক বাহিনী সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। ওই সময় ভারত পাকিস্তানে বোমা নিক্ষেপ করে। জবাবে, ভারতের একটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করে। আটক করে পাইলটকে।

পরে উত্তেজনা কমানোর জন্য ভূপাতিত করা বিমানের পাইলটকে মুক্তি দেয় পাকিস্তান।

কুরেশি বলেন, পাকিস্তানে যদি হামলা চালানো হয় ভারতেও হামলা হবে। আমি পরিষ্কারভাবে ভারতকে বলে দিতে চাই, পাল্টা আঘাত এবং তাদের পরাস্ত করতে আমরা সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত।

‘২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমরা যেভাবে তাৎক্ষণিকভাবে কার্যকরি পদক্ষেপ নিয়েছি, ভারত যদি আবারও পুরানো পথে হাঁটে, তাহলে আমরা আগের মতো ব্যবস্থা গ্রহণ বাধ্য হবো।’ বলেন কুরেশি।

তাৎক্ষণিকভাবে ভারত কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা মুঈদ ইউসুফ বলেন, সুনির্দিষ্ট এবং নির্ভরযোগ্য গোয়েন্দা সূত্রে ভারতের হামলা পরিকল্পনার তথ্য আমরা জানতে পেরেছি।

‘বিশ্বে শান্তি রক্ষা করা সবার সমন্বিত দায়িত্ব। অভ্যন্তরীণ সংকট থেকে চোখ সরানোর জন্য ভারত হামলার পরিকল্পনা করছে। বিশ্ববাসীর উচিৎ ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড থেকে ভারতকে বিরত রাখা।’ বলেন ইউসুফ।

দুই প্রতিবেশী একে অপরের বিরুদ্ধে অব্যাহতভাবে সশস্ত্রগোষ্ঠীগুলোকে সহায়তা এবং হামলা পরিকল্পনার অভিযোগ করে আসছে।

২০১৬ সালে ভারত দাবি করেছে, তারা পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছে। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের উরিতে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর উপর সশস্ত্রগোষ্ঠীর হামলার জবাবে সামরিক অভিযান চালানো হয় বলে জানায় নয়াদিল্লি।

ওই সময় পাকিস্তান তাদের ভূখণ্ডে ভারতীয় সামরিক অভিযানের দাবিকে উড়িয়ে দেয়।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী এবং দেশটির পরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, শুক্রবার পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে গুলি চালিয়ে জাতিসংঘের একটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে ভারত।

এক বিবৃতিতে সামরিক বাহিনী জানায়, বিনা উস্কানিতে ভারতের সেনাবাহিনী লাইন অব কন্ট্রোলের চিরিকোট সেক্টর গুলি চালিয়েছে। ভারতীয় বাহিনী সুনির্দিষ্টভাবে জাতিসংঘের গাতি হামলা চালায়। এসময় সামরিক বাহিনীর দুজন পর্যবেক্ষণ গাড়িতে ছিলেন।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী একটি ছবি প্রকাশ করেছে। ছবিতে বুলেটের চিহ্ন এবং ক্ষতিগ্রস্ত গাড়ি দেখা যায়।

এ ঘটনায় জাতিসংঘ এখনো কোনো বিবৃতি দেয়নি।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *