350438

ইসরাইলের সঙ্গে পাকিস্তানের গোপন সম্পর্ক!

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের এক জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা গোপনে ইসরাইল সফর করছেন বলে জানিয়েছে জেরুজালেম পোস্টসহ বেশ কয়েকটি প্রভাবশালী ইসরাইলী গণমাধ্যম। যদিও এখন পর্যন্ত তার পরিচয় পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, ইসরাইলের সঙ্গে গোপনে সম্পর্ক স্থাপন করছে পাকিস্তান।

ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে ইসলামাবাদের উপর যে অব্যাহত চাপ রয়েছে, সফরটি এরই অংশ বলছে ইসরাইলি গণমাধ্যম। এমনকি ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়ার তালিকায় পরবর্তী দেশ পাকিস্তানই হতে যাচ্ছে বলেও জানা গেছে।

গেল ২০ নভেম্বর ইমরানের ওই উপদেষ্টা ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের একটি বিমানে ইসলামাবাদ থেকে লন্ডন যান। সেখান থেকেই ওই এয়ারলাইন্সের বিএ-১৬৫ নম্বর ফ্লাইটে তেল আবিবে উড়াল দেন তিনি।

ওই উপদেষ্টা কয়েকদিন তেল আবিবে অবস্থান করে বেশ কয়েকজন শীর্ষ ইসরাইলি কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। ইমরান খান সরকার ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে কৌশলগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও জানা গেছে।

এদিকে লন্ডন-ভিত্তিক ইসলামিক থিওলজি অব কাউন্টার টেরোরিজমের- আইটিসিটি’র প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক নূর দাহরি এমন খবরের পালে হাওয়া লাগিয়েছেন। তার দাবি, ইমরান খানের ওই উপদেষ্টা তার ব্রিটিশ পাসপোর্ট ব্যবহার করে তেল আবিব সফর করেন। আরব দেশগুলোর সঙ্গে পাকিস্তানের বর্তমান শীতল সম্পর্ক থেকে ইসলামাবাদকে বের করে আনার পাশাপাশি আরো বেশি কিছু ‘অর্জনের’ বিনিময়ে ইমরান খান ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে রাজি হয়েছেন বলে তিনি জানান। ‘পাকিস্তানিদের জন্য সুখবর’ এমন শিরোনামে একটি টুইট করেন নূর দাহরি।

চলতি বছর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় প্রথম মুসলিম রাষ্ট্র হিসেবে ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করে সংযুক্ত আরব-আমিরাত। এরপরই বাহরাইন, সুদান এবং সবশেষ মরক্কোও একই পথে হাঁটে।

তেল আবিবের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে পাকিস্তানকে ব্যাপক চাপ দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তিনি বলেছিলেন, তার দেশ কখনোই ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে না। এরই মধ্যে তার এক উপদেষ্টা গোপনে তেল আবিব সফর করেছেন এমন খবর ছড়াল।

কিন্তু গোপনে ইসরাইলের সফরের বিষয়ে পুরোপুরি প্রত্যাখান করেছেন পাকিস্তানের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা জুলফি বুখারী। একে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের মিথ্যা প্রচারণা বলে অ্যাখা দেয়া হয়েছে।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *