350041

বেঁচে গেলেন মুশফিক!

সতীর্থ ক্রিকেটার নাসুম আহমেদকে দুই-দুইবার মারতে উদ্যত হওয়ায় কী শাস্তি হতে পারে বেক্সিমকো ঢাকার অধিনায়ক মুশফিকুর রহীমের? এ নিয়ে রাজ্যের জল্পনাকল্পনা ছিল দেশের ক্রিকেট অনুরাগী মহলে। অখেলোয়াড়সুলভ আচরণের দায়ে ন্যুনতম শাস্তি পেতে পারেন মুশফিক, এমন গুঞ্জন ছিল শেরে বাংলার প্রেসবক্সে।

কিন্তু জেমকন খুলনা ও গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের মধ্যকার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচ শেষে জানা গেল ভিন্ন খবর। মুশফিককে শুনানিতেই ডাকা হয়নি। বেক্সিমকো ঢাকা কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ‘শাস্তির প্রশ্নই আসে না। মুশফিককে তো ম্যাচ রেফারি ডাকেনইনি, কোনো শুনানিও হয়নি।’

এদিকে একই কথা জানিয়েছেন ম্যাচ রেফারি রকিবুল হাসান। রাতে খুলনা ও চট্টগ্রামের মধ্যকার ম্যাচ শেষে রকিবুল জানান, ‘আম্পায়াররা কোনও রিপোর্ট আমার কাছে দেয়নি। রিপোর্ট পেলেই কেবল অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নেয়া যাবে।’

তবে রকিবুল জানিয়েছেন, আম্পায়ার ও ম্যাচ রেফারি সবাই হোটেলে জৈব-সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে অবস্থান করছেন। তাই আজ রাতে কিংবা কাল (মঙ্গলবার) দিনেও কোনও রিপোর্ট আসতে পারে। আর না আসলে এ বিষয়ে আর কিছুই হবে না।

উল্লেখ্য, ঢাকা-বেক্সিমকো ম্যাচে সেট ব্যাটসম্যান আফিফ হোসেন আউট হওয়ার পর উদযাপন না করে ক্যাচ গ্লাভসবন্দী করা মুশফিক রীতিমত তেড়ে যান ফাইন লেগে দাঁড়ানো নাসুম আহমেদের দিকে। রাগী চোখে নাসুমের মুখে ঘুষি মারার ভঙ্গিমা করেন তিনি।

বল যখন হাওয়ায় ভাসছিল, তখন পেছনের দিকে যাচ্ছিলেন মুশফিক আর নাসুমও ধীর পায়ে সামনে এগুচ্ছিলেন। তবে মুশফিক বলের কাছাকাছি চলে যাওয়ায় থেমে যান নাসুম। ক্যাচটি লুফে নেয়ার পর নাসুমের সঙ্গে মৃদু ধাক্কার মতো লাগে মুশফিকের।

তাতেই রেগে আগুন হয়ে যান ঢাকা অধিনায়ক। হাতে থাকা বলটি নাসুমের দিকে ছুড়ে মারার ভঙ্গি করেন তিনি, মনে হচ্ছিল বলসহই মুখে ঘুষি মেরে দেবেন। সঙ্গে সঙ্গে অধিনায়কের কাছে ক্ষমা চান নাসুম, পর মুহূর্তেই আবার তার পিঠ চাপড়ে দেন মুশফিক।

এই ম্যাচে নাসুমের ওপর মুশফিকের রেগে যাওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম নয়। এর আগে ইনিংসের ১৩তম ওভারের তৃতীয় বলেও ঘটে একই ঘটনা। আগের বলেই আফিফের কাছে ছক্কা হজম করেন নাসুম। পরের বলটি অনসাইডে ঠেলেই এক রান নেন আফিফ, চেষ্টা করেন দ্বিতীয় রানের জন্য, যদিও তা নিতে পারেননি।

ওদিকে বলের দিকে দুই পাশ থেকে দৌড় দেন নাসুম ও মুশফিক, তবে বল আগে পেয়ে যান মুশফিক। তিনি থ্রো করতে উদ্যত হলে দেখেন নাসুম ঠিক তার সামনেই দাঁড়িয়ে। তখন থ্রো না করে আবারও রক্তিম চোখে নাসুমের দিকে বল ছুড়ে মারার ভঙ্গি করেন ঢাকার অধিনায়ক। সেবারও অধিনায়কের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন নাসুম

সূত্র: জাগো নিউজ

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *