349896

সার্বভৌমত্বে আঘাত এলে জবাব দিতে প্রস্তুত থাকতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ শান্তিতে বিশ্বাস করলেও, সার্বভৌমত্বের ওপর আঘাত এলে তা মোকাবিলার সক্ষমতা অর্জনে, সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে মিরপুর সেনানিবাসে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের কোর্স সমাপনীতে ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিয়ে এ কথা বলেন তিনি। দেশের পাশাপাশি আঞ্চলিক নিরাপত্তা রক্ষায় সশস্ত্র বাহিনী কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, রোহিঙ্গা পাঠানোর পরও মিয়ানমারের সঙ্গে সংঘাতে যায়নি বাংলাদেশ।

বিশ্বে প্রতিনিয়তই যেমন বেড়ে চলেছে নিরাপত্তার গুরুত্ব; তেমনি দেশ মাতৃকার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতেও, ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের অধীনে আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্সের মতো কৌশলগত প্রশিক্ষণ নিতে হয় সশস্ত্র বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের। যুদ্ধের ময়দানে সাফল্য পেতে সমরাস্ত্রে দক্ষতার পাশাপাশি কর্মকর্তাদের পদ্ধতিগত কৌশলও রপ্ত হয় বিশেষায়িত এই কোর্সে।

ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের কোর্স সমাপনী এবার করোনার কারণে অনুষ্ঠিত হলো ভিন্ন পরিসরে। রোববার সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে মিরপুর সেনানিবাসের এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

এ বছর, সেনা, নৌ, বিমান ও পুলিশ বাহিনী এবং সিভিল সার্ভিসসহ বাংলাদেশের ৫৭ জন কর্মকর্তা সনদ নিয়েছেন। এছাড়া, ১২টি দেশের ২৫ বিদেশী প্রশিক্ষণার্থী কোর্স শেষ করেছেন সফলভাবে। পাশাপাশি, সেনা, নৌ এবং বিমান বাহিনী থেকে এবার আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্স-২০২০ শেষ করেছেন ৫৪ জন কর্মকর্তা।

ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সততা ও নিষ্ঠার মাধ্যমে দেশের মানুষের পাশে থাকতে হবে সশস্ত্র বাহিনীকে।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি সদস্যকে দেশের জন্য গড়ে তুলতে হবে। সবসময় জনগণের পাশে থেকে জনগণের জন্য কাজ করতে হবে।

মিয়ানমার থেকে জোর করে রোহিঙ্গা পাঠালেও, বাংলাদেশ কোনো সংঘাতে যায়নি উল্লেখ করে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী শেখ হাসিনা জানান, সার্বভৌমত্ব রক্ষার সক্ষমতা থাকতে হবে তিন বাহিনীর।

তিনি বলেন, জোরপূর্বক রোহিঙ্গা পাঠালেও মিয়ানমারের সঙ্গে সংঘাতে যায়নি বাংলাদেশ। আমরা যুদ্ধ চাই না, আমরা শান্তি চাই। কেউ যদি আমাদের সার্বভৌমত্বে আঘাত দিতে আসে তার প্রতিঘাত করার মত সক্ষমতা আমাদের অর্জন করতে হবে। সেভাবেই আমাদের প্রস্তুত হতে হবে। মিয়ানমার থেকে ১০ লাখ রোহিঙ্গা এসেছে। আমরা তাদের সাথে এখনও সংঘাতে যাইনি। আলোচনা করে এটা সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে। এই বোঝা দ্রুত সমাধান করতে হবে।

এ বছর অনেকটা অনলাইন কার্যক্রমেই সম্পন্ন হয়েছে বছরব্যাপী এই কোর্স। ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ উত্তরোত্তর সামরিক-বেসামরিক কর্মকর্তাদের দক্ষ করে তুলছে বলেও জানান সরকার প্রধান।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *