349949

খেলনার জন্য ৭ বছরের শিশুকে মেরে পুঁতে রাখে ১২ বছরের শিশু

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়নগঞ্জে খেলনা গাড়ির জন্য এক শিশুকে খুন করে রান্নাঘরে লাশ পুঁতে রেখেছে অপর এক শিশু। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ওই শিশুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার দুপুরে তাকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে নিয়ে এসে শিশু সংশোধনাগারে পাঠায় পুলিশ।

জানা গেছে, নিহত শিশুটির নাম জিসান মিয়া। অপরদিকে অভিযুক্ত শিশুর নাম তুহিন। জিসান ও তুহিন একসঙ্গেই খেলাধুলা করতো। কিন্তু খেলনা না দেয়ার জেরে জিসানকে হত্যা করা হয়। হত্যার পর বস্তায় ভরে রান্না ঘরে পুঁতে রাখা হয়।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মরিষটেক গ্রাম থেকে সাত বছরের এক শিশু নিখোঁজ হওয়ার ১০ দিন পর তার বস্তাবন্দি অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে এ লাশ উদ্ধার করে সোনারগাঁ থানা পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সোনারগাঁয়ের তালতলা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আহসানউল্লাহ জানান, শিশু জিসান ও তুহিন মহজমপুর গ্রামের মরীষটেক এলাকায় একই বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে ভাড়ায় বসবাস করত।

গত ১ ডিসেম্বর দুপুরে তুহিনের ঘরের সামনে জিসান খেলনা গাড়ি নিয়ে খেলতে গেলে তুহিন তাকে মারধর করে গাড়িটি নিতে চেষ্টা করে। এ সময় জিসান তা না দিলে তুহিন জিসানকে মাথায় আঘাত করে গলাটিপে হত্যা করে।

পরে পাশের একটি পরিত্যক্ত বাড়ির রান্নাঘরে নিয়ে জিসানের লাশ বস্তাবন্দি করে রেখে দেয়। নিখোঁজের ৯ দিন পর বৃহস্পতিবার ১০ ডিসেম্বর জিসানের অর্ধ গলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর অভিযান চালিয়ে শুক্রবার রাতে শিশু তুহিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

নিহত শিশু জিসান বি আর স্পিনিং লিমিটেড কোম্পানির মালি ইলিয়াস শেখের ছেলে। অপরদিকে অভিযুক্ত শিশু তুহিনের বাড়ি সোনারগাঁ জামপুর ইউনিয়নের মটিষটেক বাড়িপাড়া এলাকায়। সে জামপুর ইউনিয়নের মহজমপুর গ্রামের মোতালিব মিয়ার ছেলে।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *