345901

যুক্তরাষ্ট্রে সিনেট-প্রতিনিধি পরিষদেও টানটান উ’ত্তেজনা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে চরম ভোটযুদ্ধ চলছে দুই প্রার্থী ট্রাম্প এবং জো বাইডেনের মধ্যে। এদিকে শুধু প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নয়, সে সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেট এবং নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসেও। সিনেটে কিছুটা এগিয়ে আছে রিপাবলিকান পার্টি অন্যদিকে প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটরা।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩৫টি সিনেট আসনের ১৭টিতে জিতেছেন রিপাবলিকান প্রার্থীরা। তাদের সিনেট আসন এখন ৪৭। অন্যদিকে, ডেমোক্র্যাটরা জিতেছেন ১২টি আসনে। তাদের সিনেট আসন সংখ্যাও এখন ৪৭টি। বাকি আসনগুলোর মধ্যে রিপাবলিকানরা এগিয়ে রয়েছেন ৫টিতে, ডেমোক্র্যাটরা ২টিতে। উল্লেখ্য, ১০০ আসনের সিনেটে অন্তত ৫১টিতে জয়ী হলে নিশ্চিত হবে নিয়ন্ত্রণ।

এদিকে প্রতিনিধি পরিষদ বা হাউসে ডেমোক্র্যাটদের অবস্থা কিছুটা ভালো। মোট ৪৩৫ আসনের প্রতিনিধি পরিষদে ১৯০টি আসন পেয়ে এগিয়ে রয়েছে ডেমোক্র্যাটরা। অন্যদিকে তাদের কাছাকাছি ১৮১টি আসন পেয়েছেন রিপাবলিকানরা। হাউস বা প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে হলে অন্তত ২১৮টি আসনের দরকার হবে।

এর আগে প্রতিনিধি পরিষদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল ডেমোক্র্যাটদের। এখনও তারা সেখানে এগিয়ে আছেন। তবে ব্যবধান খুবই সামান্য। তাতে ডেমোক্র্যাটরাই যে শেষ পর্যন্ত সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখবেন তা বলা এখনই যাচ্ছে না। অন্যদিকে সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল রিপাবলিকানদের। সেখানে ৪৭-৫৩ ব্যবধানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল রিপাবলিকানদের। পাশাপাশি ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের ট্রাইবেকার ভোটও ছিল।

এ কারণে সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে হলে, যদি বাইডেন জয়ী হন তবের ডেমোক্র্যাটদের লাগবে ৩টি আসন। আর বাইডেন হেরে গেলে লাগবে চারটি আসন। এখনও জর্জিয়া ও নর্থ ক্যারোলিনার মতো ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যে ফলাফল আসতে বাকি। ফলে সিনেট ও হাউসে চূড়ান্ত পর্যায়ে কী ঘটে সেটি এখনই বলা যাচ্ছে না।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *