300438

কুমিল্লায় নজর কাড়ছে দৃষ্টিনন্দন ‍‘আল্লাহু চত্বর’

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা সদরে আল্লাহর ৯৯ নাম খচিত দৃষ্টিনন্দন ‘আল্লাহু চত্বরের’ উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধনের পর থেকে এটি নজর কাড়ছে মানুষের।

শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ডের পূর্বপাশের তিন রাস্তার মোড়ে খোদাই করে মহান আল্লাহ তায়ালার গুণবাচক ৯৯ নাম খচিত দৃষ্টিনন্দন ভাস্কর্যটির শুভ উদ্বোধন করেন, আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক, এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন।

উদ্বোধনের পূর্বে উপজেলা সদরের বালুর মাঠে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুল ইসলাম সাহেদের সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন, কুমিল্লা কাশেমুল উলুম মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মওলানা আব্দুর রাজ্জাক।

এসময় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আহসানুল আলম সরকার কিশোর, সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হারুন আল রশিদ, উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ম. রুহুল আমিন, হানিফ সরকার।

জানা গেছে, সম্প্রতি আওয়ামী লীগ কেন্দ্রিয় কমিটির সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক এবং এফবিসিসিআই’র সাবেক সভাপতি স্থানীয় সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন এফসিএ’র উদ্যোগে এ ভাস্কর্য স্থাপন করা হয়েছে।

চত্বরটির মাঝখানে সুবিশাল একটি পিলারে চারপাশে খোদাই করে লেখা হয়েছে আল্লাহর ৯৯টি নাম এবং চূড়ায় বড় করে লেখা হয়েছে ‘আল্লাহু’।বাসস্ট্যান্ডের পাশে চত্বরটি গড়ে উঠায় উপজেলা সদর এখন আরও জনপ্রিয় ও আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। যার প্রশংসা রয়েছে এলাকাবাসী, পথচারী ও দর্শনার্থীদের মুখে মুখে।

পুরো কুমিল্লা জেলায় আল্লাহর নামে স্থাপিত এই চত্বরটি সবচেয়ে সেরা চত্বর। মোটামুটি দূর থেকেই সড়কের পাশে মুরাদনগর বাসস্ট্যান্ডে এটি চোখে পড়ে। তাই প্রতিদিনই দূর-দূরান্তের যাত্রীসহ ড্রাইভাররা গাড়ি থামিয়ে এক পলক চোখ বুলিয়ে নিচ্ছেন সুদৃশ্য এ ভাস্কর্যটিতে। এছাড়াও প্রতিদিনই বাড়ছে ভাস্কর্যটির পাশে দর্শনার্থীদের ভীড়।

এলাকাবাসী জানায়, মাত্র কয়েক বছর আগেও দুর্ঘটনা প্রবণ হিসেবে চিহ্নিত এ এলাকাটি ছিলো প্রায় জনমানবশূন্য। কিন্তু বর্তমান স্থানীয় সাংসদ ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের উদ্যোগে এ বাসষ্ট্যান্ডটি প্রতিষ্ঠিত হবার পর থেকে দিনে দিনে তা জনপ্রিয় ও লোকারন্য হয়ে ওঠে। চত্বরটি স্থানীয় সংসদ সদস্য ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুনের উত্তম কাজের একটি মাইল ফলক হয়ে থাকবে বলেও বিশ্বাস স্থানীয় এলাকাবাসীর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সংসদ সদস্য ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন বলেন, ‘দৃষ্টিনন্দন আল্লাহর গুণবাচক ৯৯ নাম খচিত ফলকটির ড্রয়িং ডিজাইনার আমি নিজেই। ভূমি থেকে এর উচ্চতা ৩০ ফুট, ব্যাস ১৪ ফুট। ফলকটি ছয়টি আরবি ক্যালিগ্রাফি টেরাকোটাসমৃদ্ধ, যার সর্বোচ্চে ‘আল্লাহু’ লেখা।

মুরাদনগর উপজেলার প্রাণকেন্দ্রে চার রাস্তার মিলিত স্থানে এই ফলক নির্মিত হয়েছে। ফলকটির উত্তর-পশ্চিম পাশ দিয়ে হোমনা উপজেলায়, উত্তর-পূর্ব পাশ দিয়ে রামচন্দ্রপুর হয়ে বাঞ্ছারামপুর রোড, দক্ষিণে মুরাদনগর টু ঢাকা রোড এবং পূর্বে কোম্পানীগঞ্জ হয়ে নবীনগর রোড। নয়ন জুড়ানো দৃশ্যের পাশাপাশি চত্বরটি মুসলিম ঐতিহ্যের স্মারক হিসেবে এরই মধ্যে সারা দেশে সুখ্যাতি লাভ করেছে।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *