298312

‘‌ধর্ষণে জন্ম নেয়া শিশুর দায়িত্ব নেবে রাষ্ট্র’

বরিশাল প্রতিনিধিঃ বিয়ের প্রলোভনে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আবু বক্কর ছিদ্দিক নাকে একজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুালের বিচারক বুধবার এ রায় দেন।

দুপুরে আসামির উপস্থিতিতে রায়ে আরো বলা হয় ধর্ষণের ফলে জন্ম নেয়া শিশুপুত্র মো. কাওছার তার মায়ের তত্ত্বাবধানে থাকবে। তার ভরন-পোষণের ব্যয় ২১ বছর না হওয়া পর্যন্ত রাষ্ট্র বহন করবে। তবে রাষ্ট্রকে তার ভরন-পোষণ নির্ধারণ করে দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আসামির অর্জিত সম্পদ থেকে আদায়ের নির্দেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। শিশুটি তার মা অথবা বাবা কিংবা উভয়ের পরিচয়ে পরিচিত হওয়ার অধিকার রাখে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

আসামি আবু বক্কর বরিশাল সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নের লামচড়ি গ্রামেমের শামসুল হক সিদ্দিকের ছেলে। ধর্ষিতা আসামির চাচাতো বোন এবং একই এলাকার বাসিন্দা।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি ও মামলা পরিচালনাকারী ফয়জুল হক ফয়েজ জানান, ২০০৫ সালের ১৩ মে আবু বক্কর সিদ্দিক তার চাচাতো বোন লাইজু বেগমকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় লাইজু গর্ভবতী হয়ে পড়লে এলাকাবাসী সালিশ ডেকে ধর্ষক আবু বক্করকে বিয়ে করতে বলেন।

কিন্তু বিয়ে করতে রাজি না হলে ওই নারী ২০১৬ সালের ১৬ মার্চ বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। একই বছরের ৩ ডিসেম্বর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বরিশাল মেট্রোপলিটন কাউনিয়া থানার এসআই শিশির পাল একমাত্র আবু বক্করকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। ১৬ জনের সাক্ষ্য শেষে বিচারক আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে ওই রায় দেন।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *