276521

আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদারের গোপন ভিডিও ফাঁস

আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে শাফাত আহমেদকে অকথ্য ভাষায় গালাগালের একটি গোপন ভিডিও ফাঁস হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, দিলদার আহমেদ ছেলেকে একটি প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে আঘাত করছেন আর অকথ্য ভাষায় গালাগাল দিচ্ছেন। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, দিলদার আহমেদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল ওই মূহূর্ত ভিডিওতে ধারণ করছেন শাফাত। এ সময় দিলদার বলছেন, এসব কী হচ্ছে, কি ভিডিও করতাছোস। এসব কত দেখলাম। রাখ তোর ভিডিও। তুই একটা বেয়াদব, তোকে এখন আমি থাপ্পড় দেব, বলতে বলতে অকথ্য ভাষায় গালাগাল দিতে থাকেন।

সম্প্রতি জামিন পেয়েছিল শাফাত ওই সময়ের বাড়িতে বাবার সঙ্গে তার পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলাপের একপর্যায়ে তীব্র ঝগড়া শুরু হয়। বিভিন্ন কথা নিয়ে বাগ্বিতণ্ডার একপর্যায়ে ছেলের সঙ্গে এসব আচরণ করেন দিলদার। শুধু শাফাতের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেনি দিলদার। সম্প্রতি পুত্রবধূর ফারিয়া মাহবুব পিয়াসের সঙ্গে তিনি খারাপ আচরণ করেছেন।

পুত্রবধূর ফারিয়া তার গর্ভের বাচ্চা নষ্ট ও নারী নির্যাতনের অভিযোগ তুলে দিলদার আহমেদ সেলিমসহ দু’জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এতে আপন রিয়েল এস্টেটের উপদেষ্টা মোখলেচুর রহমানকেও আসামি করা হয়েছে। ১১ মার্চ ঢাকা মহানগর বিচারক তোফাজ্জল হোসেনের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন পিয়াসা। আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পরে আদেশ দেবেন বলে জানান। এতে আপন রিয়েল এস্টেটের উপদেষ্টা মোখলেচুর রহমানকেও আসামি করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে লেখা হয়েছে, আসামি ইচ্ছাকৃতভাবে অবৈধ উদ্দেশ্যে দরখাস্তকারিনীকে গর্ভপাত করানোর চেষ্টা করেন এবং দরখাস্তকারিনীর কাছে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়ে দরখাস্তকারিনীর অস্থাবর সম্পত্তি আত্মসাৎ করে দণ্ডবিধি আইনের ৩১৩, ৩২৩, ৩৮৬, ৪০৬, ৫০৬ ও ৩৪ ধারার আমলযোগ্য অপরাধ করেছেন।

বাদী আদালতে জবানবন্দিতে বলেন, গত ৫ মার্চ আমার শ্বশুর ও তার লোকজন আমার বাসায় ঢুকে আমাকে মারধর করেন। এ সময় আমার গর্ভে থাকা ২ মাসের বাচ্চা ও আমাকে হত্যা করতে চান। শাফাতের সঙ্গে বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তিনি বিভিন্ন সময় নির্যাতন করেন বলে অভিযোগ করেন। এদিকে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের বিরুদ্ধে করা নির্যাতন মামলা আগামী ১৯ জুনের মধ্যে তদন্ত করে পিবিআইকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সূত্র:যুগান্তর ……. দেখুন ভিডিওটি….

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *