178855

স্বামীকে মারতে গিয়ে পরিবারের ১৩ সদস্যকে খুন!


ইচ্ছের বিরুদ্ধে মেয়েদের বিয়ে দেওয়া নতুন কোনো ঘটনা নয়। কিন্তু এ ধরনের বিয়ের পর স্বামীকে খুন করার ছক কষা কী আর স্বাভাবিক বিষয়? অথচ তাই করে বসলেন পাকিস্তানের সদ্য বিবাহিতা।

ঘটনা সেখানেই থেমে থাকেনি। ঘটিয়ে দিয়ে বড় ধরনের ট্র্যাজেডি। সামান্য ভুলে সেই ষড়যন্ত্রের বলী হলেন পরিবারের ১৩টি প্রাণ।
পাকিস্তানের মুজফফরগড়ের ঘটনা। ইন্ডিয়া টুডে-তে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা যায়, মাস দুয়েক আগে বিয়ে হয়েছে আসিয়ার। তার একজন প্রেমিক থাকলেও ইচ্ছের বিরুদ্ধে অন্য এক পাত্রের সঙ্গে তার বিয়ে দেয় পরিবার। বিয়ের পর একবার পালাতেও চেষ্টা করেছিলেন। তবে চেষ্টা ব্যর্থ হয়। এরপর প্রেমিকের সঙ্গে যোগসাজস করে সে স্বামীকে খুন করার ছক কষে।

প্রেমিকের এনে দেওয়া বিষ স্বামী আমজাদের দুধের গ্লাসে মিশিয়ে খেতে দিয়েছিল আসিয়া।
তবে সেই দুধ আর আমজাদের খাওয়া হয়ে ওঠেনি। আমজাদের মা দুধটা নষ্ট হবে দেখে, সেটার সঙ্গে আরও দুধ মিশিয়ে গোটা পরিবারের জন্য লস্যি তৈরি করেন। পরিবারের ২৭ জন সেই বিষাক্ত দুধের লস্যি খেয়েছেন। এদের মধ্যে বেশ কয়েকটা শিশু ছিল বলেও জানা যায়। বিষক্রিয়ায় প্রাণ যায় পরিবারের ১৩ জনের!

এতে অসুস্থ হয়ে পড়েন বাকিরা। প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল যে, লস্যিতে টিকটিকি পড়ে তা বিষাক্ত হয়ে গিয়েছে। পরে পুলিশের জেরার মুখে দোষ স্বীকার করে নেন আসিয়া।
সূত্র : এই সময়

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *