178114

লজ্জাজনক হার, অতঃপর নাইট ক্লাবে তিন ক্রিকেটার!

দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও অভিন্ন ফল। দলের এমন বাজে পারফরম্যান্সে গোটা দেশ মর্মাহত। অথচ এই কঠিন অবস্থার মধ্যেই টিম ম্যানেজমেন্টের নিয়ম ভেঙে ক্যাসিনোতে(ক্যাসিনো হলো-এমন একটি প্রোমদ হাউজ যেখানে জুয়া, মদ, নারী রাতভর উন্মুক্ত থাকে আগতদের জন্য) ছুটে গেলেন বাংলাদেশ দলের তিন ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ, নাসির হোসেন ও শফিউল ইসলাম।

রবিবার ইস্ট লন্ডনে শেষ ওয়ানডে ম্যাচে ২০০ রানে শোচনীয়ভাবে হেরে যায় বাংলাদেশ। ম্যাচ শেষ হবার ঘণ্টাখানেক পরই তিন ক্রিকেটার চলে যান নগরীর একটি ক্যাসিনোতে। রাত দশটার মধ্যে হোটেলে ফেরার কথা থাকলেও তারা ফিরেন রাত সোয়া এগারটার পর। যেটা টিম ম্যানেজমেন্টের স্পষ্ট নিয়মভঙ্গ। তবে তারা প্রোমদে অংশ নিয়েছেন বা জুয়া খেলেছেন-সেটা জানা যায়নি।

বাংলাদেশ দলের নিয়মিত ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজনের পরিবর্তে এবার দলের সঙ্গে ম্যানেজার হিসেবে যান মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তিনি প্রধান নির্বাচকও বটে। তবে ঘটনাটি ঘটে নান্নুর অগোচরে।

তাসকিন-শফিউল-নাসিরের এমন আচরণে বিব্রত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। বিসিবির ভেঙে দেওয়া কমিটির সভাপতি নাজমুল হাসান তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন। মঙ্গলবার বিসিবি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘টিম ম্যানেজারের লিখিত রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত এ ব্যাপারে বিস্তারিত কথা বলা যাবে না। একজন খেলোয়াড় হলে কিছু করা যেতো। কিন্তু তিনজন খেলোয়াড় বলে এখনই কিছু বলছি না। অবশ্যই বিষয়টা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তবে নাজমুল হাসানের ধারণা, তিন ক্রিকেটার ক্যাসিনোতে গেলেও জুয়া খেলেননি! এ বিষয়ে তার বক্তব্য, ‘এটা নিউজ হওয়ার মতোই ঘটনা, কারণ ওরা ক্যাসিনোতে গেছে। কিন্তু ক্যাসিনোতে মানুষ যায় খেলতে, কিন্তু ওরা খেলতে যায়নি। সবাই বলছে ওরা খেলেনি।’

উল্লেখ্য, ২০১৫ বিশ্বকাপের সময় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল পেসার আল আমিনকে। শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে শাস্তি পেতে হয়েছিল সাকিব আল হাসানকেও।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *