178176

‘চলন্ত ট্রেনে জিনসের ভেতর হাত ঢুকিয়ে দিয়েছিল চাচা’

নিজের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ আত্মীয়ের, সম্পর্কে চাচা, সঙ্গে ট্রেনে যাত্রা করছিলেন তিনি। সেখানেই চাচার বিকৃত যৌন লালসার শিকার হতে হয়েছিল তাকে। কীভাবে মাত্র এগারো বছর বয়সেই যৌন লাঞ্চনার শিকার হয়েছিলেন, তা এবার প্রকাশ্যে আনলেন বিখ্যাত গায়িকা সোনা মহাপাত্র।

সম্প্রতি ‘মি টু’ ক্যাম্পেইনে এক ভয়ঙ্কর সত্য সামনে আনলেন সোনা মহাপাত্র। তিনি জানান, তখন তার বয়স মাত্র এগারো বছর। ট্রেনে পাশের বাড়ির এক চাচার সঙ্গে যাচ্ছিলেন। লোয়ার বার্থে ঘুমিয়েছিলেন তিনি। আচমকাই অনুভব করেন তার জিনসের ভেতর কেউ হাত ঢুকিয়ে দিয়েছে। চোখ খুলে সেদিন ‘চাচা’কেই দেখতে পেয়েছিলেন ছোট্ট সোনা। ভয়ে, ঘৃণায় সেদিন কুকড়ে গিয়েছিলেন তিনি। মুখ থেকে টু শব্দটাও বের করতে পারেননি। কিন্তু আজ নিজের লেখনীতে সেই ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতাকেই তুলে ধরলেন বিখ্যাত বলিউড গায়িকা সোনা মহাপাত্র।

প্রসঙ্গত, মেয়েরা কীভাবে প্রতিপদে যৌন লাঞ্ছনার শিকার হতে হয়, তা নিয়েই এই ‘মি টু’ ক্যাম্পেইন। সেখানেই সুর চড়ান এই গায়িকা। জীবনে চলার পথে অনেকক্ষেত্রে তিনিও এই অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন বলে জানান। ছোট্ট বয়সে তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া এই ঘটনা কীভাবে শৈশবে প্রভাব ফেলেছিল, তাও জানান তিনি।
ভারতের জি নিউজ পত্রিকার খবরে বলা হয়, সোনা মহাপাত্র জানান, এই ঘটনার অনেক দিন পরও রাতে একা ঘুমাতে পারতেন না তিনি, অন্ধকার ঘরে থাকতে ভয় পেতেন, নিজেকে সব কিছু থেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন। ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার সময়েও এই আতঙ্ক পিছু ছাড়েনি তার। তখনও ট্রেনে বার্থে ঘুমালে সেই কথাই মনে পড়ত সোনার। এরপর একবার দিল্লিতে বাসের মধ্যেও সহযাত্রীর বিকৃত মানসিকতার শিকার হয়েছিলেন। ক্যাম্পেইনে সকলের সঙ্গে এই কথা শেয়ার করতে পেরে, তিনি অনেক হাল্কা বোধ করছেন। তবে কর্মস্থলে তিনি সহকর্মীদের কাছ থেকে যে সম্মান, ভালোবাসা পেয়েছেন, তাতে তিনি অভিভূত।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *