173536

একটি ল্যাম্পপোস্ট একটি ডাস্টবিন ও একজন নায়করাজ

উত্তরার রাজলক্ষ্মী প্রোডাকশনের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় মূল ভবনের বিশাল সাইনবোর্ডের লোগো কখনো খেয়াল করেছেন? ল্যাম্পপোস্টের নিচে একজন মানুষ বসে আছে, পাশেই একটা ডাস্টবিন—লোগোটা এমন। এটি নায়করাজ রাজ্জাকের সব প্রতিষ্ঠানের লোগো। একজন চিত্রনায়কের ব্যক্তিগত প্রতিষ্ঠানের লোগো এমন কেন? অনেকের মনে এমন ভাবনা তৈরি হয়ে নিশ্চয়। নায়করাজের কাছে এর ব্যাখ্যা জানা যায়নি। এখন তো তিনি সব প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার ঊর্ধ্বে। সুযোগ পেয়ে জানতে চাইলাম তার ছেলে, অভিনেতা বাপ্পারাজের কাছে।

স্মৃতিচারণা করতে গিয়ে তিনি জানালেন, ‘এটা প্রতীকী। ১৯৬৪ সালে বাবা শূন্য থেকে জীবন শুরু করেছিলেন। তখন আমার বয়স আট মাস মাত্র। আমার নিজের মনে নেই প্রথম দিকের কথা। বাবার কাছে শুনেছি। ৬৪ সালের আগে বাবা কখনো ঢাকায় আসেননি। কার বাসায় উঠবেন এমন পরিচিতজন ছিল না। ঢাকা এসে আমাদের নিয়ে স্টেডিয়াম এলাকার একটি ল্যাম্পপোস্টের নিচে বসেছিলেন। পাশে ছিল একটি ডাস্টবিন। সেখান থেকে শুরু। এই ল্যাম্পপোস্টের নিচ থেকেই ঢাকায়, বাংলাদেশে বাবার নতুন জীবন শুরু।

আমাদের নতুন শুরু। এ বিষয়টিকে প্রতীকী অর্থে বোঝানো হয়েছে লোগোটিতে।’ বাপ্পারাজ বলেন, ‘আব্বা যখন প্রথম রাজ-লক্ষ্মী প্রোডাকশনের যাত্রা করেন, তখন এই লোগোটা করা হয়। বাবার পরিকল্পনামতো এটার নকশা করেছিলেন সুভাষ দত্ত। প্রথম জীবনে যিনি একজন পেশাগত কমার্শিয়াল আর্টিস্টও ছিলেন। আমাদের সব কটি প্রতিষ্ঠানে, সাইনবোর্ডে, প্যাডে এই লোগো ব্যবহার করা হয়েছে।’

লেখা ও ছবি : প্রথম আলো

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *