ছেলে-মেয়েকে হত্যা: ঘাতক মা রিমান্ডে

ঢাকার উত্তর বাসাবো এলাকায় নিজেদের বাসায় হত‌্যাকাণ্ডের শিকার দুই ভাই-বোনের মাকে গ্রেপ্তারের পর রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। শুক্রবার ওই শিশু দুটির লাশ উদ্ধারের সময় থেকে মা তানজীন রহমানকে পাওয়া যাচ্ছিল না।

শনিবার ভোরে বাসাবো এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মাসুদুর রহমান জানিয়েছেন। পরে তাকে দুই শিশু হত‌্যার মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে ঢাকার আদালতে পাঠায় পুলিশ।

সবুজবাগ থানার ‍ওসি আব্দুল কুদ্দুস ফকির সন্ধ্যায় বলেন, “তানজীন আক্তারকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে পাওয়া গেছে। সন্তানদের মৃত্যু নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।”

এদিকে, সবুজবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুস কুদ্দুসের দাবি, মাকে থানায় নেওয়া হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি দুই সন্তানকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় দুই শিশুর বাবা মাহবুবুর রহমান মাকে আসামি করে হত্যামামলা করেছেন।

basabo-murder-_22067_1471092168শুক্রবার রাত সোয়া ১০টার দিকে বউবাজার এলাকার একটি বাড়ির চিলেকোঠা থেকে ভাইবোনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘরের দুটি কক্ষ থেকে দুই শিশুর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার পর থেকে তাদের মায়ের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

তারা হলো মাশরাফি বিন মাহবুব আবরার (৭) ও হুমায়রা বিনতে মাহবুব তাকিয়া (৬)। তাদের বাবা মাহবুবুর রহমান ঢাকা ওয়াসার কর্মকর্তা। মাহবুবুর রহমানের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায়। শিশু দুটি স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় পড়ত বলে স্বজনেরা জানিয়েছেন। মা তানজিন রহমান গৃহিণী। তাঁর বাবার বাড়ি খিলগাঁওয়ের বাগিচা এলাকায়।

ওই বাসায় একটি চাপাতি পাওয়া গেছে বলে গতকাল পুলিশ জানায়। তবে ওই চাপাতি দিয়েই হত্যা করা হয়েছে কি না, এ ব্যাপারে পুলিশ নিশ্চিত নয়।

মা তানজিন রহমান মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানিয়েছেন মাহবুবুরের বড় বোন লায়লা নূর।

গত ২৯ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর বনশ্রী এলাকায় হত্যার শিকার হয় ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের বেইলি রোড শাখার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী ইশরাত জাহান অরণী (১৪) এবং তার ছোট ভাই হলি (ইন্টারন্যাশনাল) ক্রিসেন্ট স্কুলের নার্সারির ছাত্র আলভী আমান (৬)।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *