355883

‘আপত্তিকর’ চিঠি ফাঁস, বিপাকে অভিনেত্রী শ্রাবন্তী!

বিনোদন ডেস্ক।। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের ক্লাবগুলো সম্পর্কে কমিশনকে লেখা বিজেপি প্রার্থী অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর আপত্তিকর চিঠি ফাঁস হয়েছে। এ ঘটনায় ক্লাবগুলোর নেতারা বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তীর বিরুদ্ধে একাট্টা হয়েছেন।

মঙ্গলবার এ নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বিজেপি প্রার্থী তথা অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় বেহালার ক্লাবগুলোতে দুর্বৃত্তদের আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে বলে নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছেন।

চিঠিতে শ্রাবন্তী লিখেছেন, ‘‘স্থানীয় ক্লাবগুলিকে এলাকায় সন্ত্রাস কায়েম করতে কাজে লাগানো হচ্ছে, এ ক্ষেত্রে তৃণমূলের পক্ষ থেকে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হচ্ছে। স্থানীয় ক্লাবগুলিতেই দুর্বৃত্তদের আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে, যাতে তারা নির্বাচনের সময় গোলমাল পাকাতে পারে।’’

গত ২ এপ্রিল নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে ওই চিঠিটি পাঠিয়েছেন।বেহালা পশ্চিম আসনে শ্রাবন্তী নির্বাচনে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী তথা চারবারের বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ভোটযুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন।

আগামী ১০ এপ্রিল এই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে।

নির্বাচনের আগে শ্রাবন্তীর এই চিঠিটি প্রকাশ্যে চলে আসায় অভিনেত্রীর ওপর বেজায় চটেছেন বেহালা পশ্চিমের ক্লাব সংগঠনগুলি। এতে বিজেপি শিবির বেকায়দায় পড়েছে, বিপাকে পড়েছেন অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। কারণ, ওই চিঠি ফাঁস হওয়ার পর বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদে সরব হয়েছেন ক্লাবের নেতারা। এতে তরুণ প্রজন্মের ভোটাররা শ্রাবন্তী থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে পারেন।

সাহাপুর ইয়ুথ এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক রাকেশ সিংহ বলেন, ‘মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য এই ধরনের চিঠি লেখা হয়েছে। বেহালা ক্লাবগুলি আমপান ও লকডাউনের সময় যেভাবে পরিষেবা দিয়েছে সেগুলো হয়তো বিজেপি প্রার্থী জানেন না। সবকিছুর সরলীকরণ করে ক্লাবগুলিতে রাজনীতির রঙ লাগানোর চেষ্টা হয়েছে। অভিনেত্রী নিজেকে প্রচারে বেহালার মেয়ে বলে দাবি করছেন। অথচ বেহালা ক্লাব সংস্কৃতি প্রসঙ্গে উনি কিছুই জানেন না।’

তৃণমূল প্রার্থী পার্থবাবুর মুখ্য নির্বাচনী এজেন্ট অঞ্জন দাস বলেছেন, ‘যারা এই ধরনের কথা বলছেন, তারা বেহালাকে ভাল করে চেনেন না। কারণ, এক সময় বেহালায় মস্তানদের জব্দ করতে ক্লাব সংগঠনগুলিই রাস্তায় নেমেছিল। আসলে হারের আগে থেকেই হারের কারণ সাজিয়ে রাখছেন বিজেপি প্রার্থী। আর তৃণমূল দলগতভাবে কোনও ক্লাবকে অর্থ দেয়নি। সরকার যেসব ক্লাব সংগঠনকে অর্থ দিয়েছিল, সেখানে ক্লাবের রঙ দেখা হয়নি। বেহালার ক্লাব সংগঠনগুলিকে অপমান করার আগে তাদের ইতিহাস প্রসঙ্গে জেনে নিন বিজেপি প্রার্থী।’’

 

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *