353524

ভালোবাসার মধুর বন্ধন

বিনোদন ডেস্ক।। দু’টি হৃদয়কে একসঙ্গে বাঁধতে পারলেই যেন নিখাদ ভালোবাসার জন্ম হয়। এমন ভালোবাসার মধুর বন্ধন রয়েছে আমাদের শোবিজ অঙ্গনেও। আজ বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে ক’জন তারকার সেসব ভালোবাসার গল্পই তুলে ধরা হলো।

ওমর সানি-মৌসুমী: ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় তারকা দম্পতি ওমর সানি ও মৌসুমী। নব্বই দশকে সালমান শাহ’র বিপরীতে চলচ্চিত্রে নাম লেখান মৌসুমী।

পরে ওমর সানির সঙ্গে তার জুটি দর্শক ব্যাপকভাবে গ্রহণ করে। একসঙ্গে অভিনয় করতে গিয়েই বন্ধুত্ব ও পরে ভালোবাসার সম্পর্কে জড়ান তারা। ১৯৯৬ সালে বিয়ের পর্বটা সেরে ফেলেন।
তাদের ভালোবাসার ঘরে একটি ছেলে ও একটি মেয়ে রয়েছে।

তৌকীর আহমেদ-বিপাশা হায়াত: বিপাশা তখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চারুকলা অনুষদে পড়েন। আর তৌকীর পড়তেন বুয়েটে। পাশাপাশি মঞ্চে চুটিয়ে অভিনয় করছিলেন। একদিন চারুকলা অনুষদে এক বন্ধুর আমন্ত্রণে তিনি বেড়াতে আসেন। আর সেখানেই বিপাশার ছবি আঁকা দেখে মুগ্ধ হন। এরপর কয়েকবার দেখা হলেও বন্ধুত্ব সৃষ্টি হয় ‘রূপনগর’- ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করতে গিয়ে। ভালোলাগা থেকে হয় ভালোবাসা। একদিন লেকের ধারে হাঁটার সময় তৌকীর তার ভালোবাসার কথা জানান বিপাশাকে।

এভাবেই ভালোবাসার শুরু তাদের। ১৯৯৯ সালের ২০শে জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। দুই সন্তান নিয়ে সুখের সংসার বিপাশা-তৌকীর দম্পতির।

জাহিদ হাসান-সাদিয়া ইসলাম মৌ: জাহিদ হাসান ও সাদিয়া ইসলাম মৌ একে-অন্যের কাজ খুবই পছন্দ করতেন। এই পছন্দ থেকেই দু’জনের মধ্যে ভালোলাগা তৈরি হয়। পরবর্তীতে বিটিভি’র জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদি’র মাধ্যমে দু’জনে একসঙ্গে পারফর্ম করেন। অনুষ্ঠানটি প্রচারের পর আলোচিত হন জাহিদ ও মৌ জুটি। এরপর নানা অনুষ্ঠানে তাদের দেখা হতো। এক সময় ভালোবাসা জন্ম নেয়। সেই ভালোবাসা রূপ নেয় সুখের সংসারে। আজ সেই সংসারে রয়েছে দুই সন্তান।

রিয়াজ-তিনা: চিত্রনায়ক রিয়াজ ও মডেল তিনার পরিচয় সূত্র হিসেবে কাজ করেছে ‘হৃদয়ের কথা’ সিনেমাটি। এই সিনেমায় একটি গানের নাচের দৃশ্যে প্রথম পরিচয় হয় তাদের। সে সময় রিয়াজ প্রধান নায়ক হলেও তিনা ছিলেন সাধারণ একজন সহকর্মী। শুটিংয়ের সময়ই রিয়াজের মনে তিনা নামের মেয়েটি যেন বাসা বাঁধে। তবে তিনার মনের বাসা বাঁধতে রিয়াজকে দীর্ঘদিন অপেক্ষা করতে হয়। হঠাৎ একদিন রিয়াজ প্রেমের প্রস্তাব দেন তিনাকে। সে সময় তিনা শুটিংয়ের জন্য বিদেশে যাচ্ছিলেন। এয়ারপোর্ট থাকাকালীন রিয়াজ তাকে ফোনে প্রস্তাবটি দেন। তিনা অবশ্য কোনো উত্তর দেননি। উত্তর পাওয়ার জন্য ২০ দিন অপেক্ষা করতে হয়েছিল রিয়াজকে। যেদিন বিদেশ থেকে দেশে ফিরলেন সেদিন বিকালেই ভালোবাসার প্রস্তাবে রাজি হন তিনা। ২০০৭ সালের ১৮ই ডিসেম্বর বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা। তাদের ভালোবাসার সংসারে রয়েছে একটি ছেলে।

মোশাররফ করিম-জুঁই করিম: ভালোবেসে বিয়ে করে সুখে সংসার করছেন জনপ্রিয় অভিনেতা মোশাররফ করিম ও অভিনেত্রী জুঁই করিম। তাদের বিয়ে হয় ২০০৪ সালের ৭ই অক্টোবর। বিয়ের চার বছর আগে থেকে দু’জনের মধ্যে সম্পর্কের শুরু। ঢাকার মালিবাগে মোশাররফের এক বন্ধুর কোচিং সেন্টার ছিল। সেখানেই মোশাররফের সঙ্গে জুঁইয়ের পরিচয়। এরপর একটা সময় মোশাররফ জুঁইকে জানান তার ভালো লাগার কথা। জুঁইও পছন্দ করতেন মোশাররফ করিমকে। তারপর থেকেই ভালোবাসার শুরু। তাদের ঘরে রয়েছে একটি ছেলে। তাকে নিয়েই এ তারকা দম্পতির সুখের সংসার। গ্রন্থনায়: বিনোদন ডেস্ক

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *