352842

আব্দুর রাজ্জাক অবসরের আগেই নির্বাচকের চেয়ারে

খেলাধূলা ডেস্ক।। ক্রিকেটকে ‘গুডবাই’ বলার আগেই আব্দুর রাজ্জাকের নতুন সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচক হলেন জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক। ইতিহাসের সফলতম সীমিত ওভারের বোলার তিনি। একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২০০৪ সালে হংকংয়ের বিপক্ষে অভিষেক হয় রাজ্জাকের।

বুধবার ( ২৭ জানুয়ারি) বিসিবির নবম বোর্ড সভায় বাংলাদেশের এই স্পিন তারকাকে নির্বাচক কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। বিসিবির পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাশার সুমনের সঙ্গী হয়ে কাজ করবেন রাজ্জাক।

অনেকদিন ধরেই বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের নির্বাচক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাশার। কিন্তু পুরোদমে ঘরোয়া ক্রিকেট চললে দুজনের পক্ষে সব ম্যাচে নজর রাখা সম্ভব হয় না। এই কারণে অনেক দিন ধরেই তারা তৃতীয় একজন নির্বাচক চাচ্ছিলেন। সে জন্য করোনার আগেই একবার রাজ্জাকের নাম এসেছিল আলোচনায়।

প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট থেকে অবসরে যাননি এ বাঁহাতি স্পিনার। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে উইকেট সংখ্যায় রয়েছেন চূড়ায় (৬৩৪) । রয়েছে ছোট-বড় আরও অর্জন। রাজ্জাক জাতীয় নির্বাচক হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘সন্ধ্যায় খবরটি পেয়েছি। অনেক দিন আগে মৌখিক প্রস্তাব পেয়েছিলাম। সেটাও প্রায় এক বছর আগে। আলহামদুদিল্লাহ এখন কাজ করার সুযোগ এসেছে। সততার সঙ্গে নিজের দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করবো।’

একদিনের ক্রিকেটে ১৫৩ ম্যাচ খেলে ২০৭ উইকেট শিকার করা আব্দুর রাজ্জাক সবশেষ একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেন ২০১৪ সালের ২৫ আগস্ট ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। ২০০৬ সালের চট্টগ্রামের মাটিতে টেস্টে অভিষেক হওয়া রাজ্জাক ১৩ ম্যাচে শিকার করেন ২৮ উইকেট। সবশেষ টেস্ট খেলেন শের ই বাংলা স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

কিন্তু ভাবনার বিষয় হলো, জাতীয় দলের জার্সিতে ১৩ টেস্ট, ১৫৩ ওয়ানডে ও ৩৪ টি-টোয়েন্টি খেলা রাজ্জাক এখনও ক্রিকেট থেকে অবসরে যাননি। স্থগিত হওয়া ঢাকা প্রিমিয়ার লিগেও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে চুক্তিবদ্ধ, খেলেছেন এক ম্যাচ। করোনা বিরতির পর বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ শুরুর আগে ফিটনেস পরীক্ষা বিপ টেস্ট দিয়েছিলেন। কিন্তু দল না পাওয়ায় খেলার সুযোগ হয়নি। ফলে আনুষ্ঠানিক অবসরের আগে নির্বাচকের দায়িত্ব কীভাবে পালন করবেন তা নিয়ে কিছুটা দ্বিধায় আছেন তিনি।

 

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *