352422

যে ৩টি কারণে ডিমের ফেস মাস্ক ব্যবহার করা জরুরী

প্রোটিনের অন্যতম উৎস ডিম। ডিমে রয়েছে ভিটামিন ও মিনারেল, সেলেনিয়াম,ক্যালসিয়াম,ম্যাগনেসিয়াম,পটাশিয়াম ও ফসফরাস রয়েছে। শরীরের উপকার ছাড়াও ডিমের আরো অনেক গুণাগুণ রয়েছে। ত্বকের যত্নে যাদুকরী ভূমিকা পালন করে ডিমের সাদা অংশ। উজ্জ্বল ও মসৃণ ত্বকের জন্য ডিম অনেক জরুরী। ডিমের লুটেইন ত্বককে হাইড্রেট করতে পারে এবং টিস্যুগুলো মেরামত করতে পারে। ডিমের মাস্ক আপনার ত্বকের জন্য কেন জরুরী সে সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ব্রণ কমাতে কার্যযকরী:

ডিমের সাদা অংশগুলো অতিরিক্ত ময়লা, তেল এবং মৃত কোষগুলো সরিয়ে আপনার ত্বককে সুন্দর রাখে। সেই সাথে ডিমের লাইসেজাইম নামক একটি এনজাইম ব্রণজনিত ব্যাকটিরিয়াকে মেরে ফেলে তাই আপনার মুখের ব্রণগুলো কমে। ডিমের মাস্ক এইভাবেই ত্বক থেকে অতিরিক্ত তেল শুষে নিতে পারে, ছিদ্রগুলি আটকে যাওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করে।

ত্বক হাইড্রেট করার কাজে:

ত্বকে হাইড্রেশন সরবরাহের জন্য ডিমের মাস্ক অনেক ভালো। ফেস মাস্কগুলো হিউমে্যাকট্যান্ট হিসাবে প্রোটিনের কার্যকারিতা হিসাবে ত্বকের হাইড্রেশন বাড়িয়ে তুলতে পারে। ডিম লিউটিন এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলিতে সমৃদ্ধ যা জারণ চাপ কমায় এবং ত্বকের হাইড্রেশনকে উন্নত করে। ডিমের ফেস মাস্ক ব্যবহার করলে ত্বক উজ্জ্বল হয়, বলিরেখা হ্রাস পায় এবং ত্বকের তৈলাক্ত ভাব কমায়। ডিমের কুসুম ফ্যাটি এসিড থাকায় এগুলো ত্বকের আদ্রর্তা বজায় রাখে।

ডিম ব্যবহারে অ্যান্টি-এজিং সুবিধা:

ডিম-ভিত্তিক ফেস মাস্কের প্রোটিনগুলি ত্বকে আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে এবং এতে করে বার্ধক্যের ছাপ চেহারায় পরেনা। যে ডিমগুলোতে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড রয়েছে তা বলিরেখা কমাতে সাহায্য করে। ডিমের সাদা অংশগুলোতে প্রোটিন এবং কোলাজেন রয়েছে যা ত্বককে রাখে মসৃণ ও টানটান। ডিমের সাদা অংশে প্রয়োজনীয় ১৮টি অ্যামিনো অ্যাসিড রয়েছে যা ক্ষতিকর প্রভাব থেকে ত্বককে সুরক্ষা দয়ে। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক মেরামতে ডিম অনেক জরুরী।

 

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *