346147

টাই হলে কী হবে?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ক্ষণে ক্ষণে রূপ বদলিয়ে বিশ্বজুড়ে শ্বাসরূদ্ধকর পরিস্থিতির আবির্ভাব ঘটানো মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নতুন চিন্তা উসকে দিয়েছে। দেশটিতে মোট ৫৩৮টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট রয়েছে; প্রতি মুহূর্তে দুই প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং জো বাইডেন পরস্পরকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন।

নির্বাচনী ফলের অপেক্ষায় এমন এক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে যাতে উভয় প্রার্থীই সমান ২৬৯ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পাওয়ার সুযোগ দেখা যাচ্ছে। কিন্তু সত্যিই এই সুযোগ যদি বাস্তব হয়, তাহলে কী ঘটবে?

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বলছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল এখনও টাই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এমন ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা থাকবে না যদি রিপাবলিকান দলীয় প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প অ্যারিজোনা (১১টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোট), নেভাদা (৬টি), নর্থ ক্যারোলাইনা (১৫টি) ও পেনসিলভানিয়ায় (২০টি) জিতে যান এবং জর্জিয়ায় হেরে বসেন।

জর্জিয়ায় গণনায় ডোনাল্ড ট্রাম্পের চেয়ে এক হাজার ৯৭ ভোটে এগিয়ে গেছেন জো বাইডেন। ১৬টি ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের এই রাজ্যে গণনা বাকি আছে প্রায় ১০ হাজার ভোট।

এই রাজ্যে এখনও গণনা শেষ হয়নি। তবে ফল বাইডেনের পক্ষে গেলে তার মোট ইলেকটোরাল কলেজ ভোটের সংখ্যা দাঁড়াবে ২৬৯। চূড়ান্ত বিজয়ের জন্য দরকার হবে মাত্র একটি ইলেকটোরাল ভোট।

আর জর্জিয়ায় বাইডেন জয়ী হলে ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য তা হবে সর্বনাশা। তার জয়ের সম্ভাবনা একেবারে ফুরিয়ে যাবে। ট্রাম্প যদি বাকি রাজ্যগুলোতে জয় পান তাহলে তার ইলেকটোরাল ভোটের সংখ্যা দাঁড়াবে ২৬৯। যদিও এর সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। ফলে মার্কিন নির্বাচনের ইতিহাসে নজিরবিহীন এক দৃশ্য দেখবে বিশ্ব; এই প্রতিযোগিতার ফল হবে টাই।

যদি কোনও প্রার্থী ইলেকটোরাল কলেজ ভোটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পান, তাহলে দেশটির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট কে হবেন; সেই সিদ্ধান্ত নেবে মার্কিন কংগ্রেস।

প্রতিনিধি পরিষদে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সিদ্ধান্তে ভোটাভুটি হবে। তখন প্রত্যেকটি রাজ্য থেকে মাত্র একজন প্রতিনিধি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য একজন প্রার্থীর দরকার হবে ২৬ ভোট।

এরপর ভাইস-প্রেসিডেন্ট বেছে নেবে দেশটির সংসদের উচ্চকক্ষ সিনেট। তখন সিনেটের ১০০ সদস্য ভাইস-প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দেবেন। ৩ নভেম্বরের ভোটে নির্বাচিত কংগ্রেস সদস্যরা এই দায়িত্ব নেবেন। তবে এসব বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *