345983

ভোটগণনা চ্যালেঞ্জ করে মামলা ঠুকে দিলেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয় দাবি করেছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। যদিও চূড়ান্ত জয়-পরাজয় এখনো ঝুলে আছে। ভোট নিষ্পত্তির জন্য আইনি লড়াইয়ে নামছে উভয় দল।

গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য উইসকনসিন, পেনসিলভানিয়া এবং মিশিগানে ভোট গণনাকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতে মামলা করেছে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির তথ্য বলছে, মিশিগানে বাইডেন জয় পেয়েছেন। মার্কিন গণমাধ্যমের পূর্বভাস উইসকনসিনেও বিজয়ী হয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী। পেনসিলভানিয়ার ফলাফল এখনো প্রকাশ পায়নি।

জটিলতাপূর্ণ এ তিন রাজ্যে উতরে গেলে জয় চলে আসবে বাইডেনের হাতে। নিজেকে বিজয়ী ঘোষণা আপাতত স্থগিত রাখলেও বাইডেন বলেছেন, ট্রাম্পকে হারাতে তিনি অবশ্যই আত্মবিশ্বাসী।

মঙ্গলবারের নির্বাচনে ১২০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভোট পড়েছে। মার্কিন নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা জানিয়েছে, এবার ভোট পড়েছে ৬৬ দশমিক ৯ শতাংশ।

দুই পক্ষের প্রচারণা শিবির কী জানিয়েছে?

বুধবার বিকেলে ডেলাওয়্যার রাজ্যের উইলমিংটন থেকে বাইডেন জানান, ভোট গণনা শেষ হলে আমরাই জয়ী হব বলে বিশ্বাস করি। তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে সরকার গঠন করতে যাচ্ছি আমি। প্রেসিডেন্সি একপক্ষীয় কোনো প্রতিষ্ঠান নয়।

ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থী আরও বলেন, পেনসিলভানিয়ার বিষয়ে তিনি খুবই আশাবাদী। রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির জানিয়েছে, বৈধভাবে ভোট গণনার ভিত্তিতে ওই রাজ্যে নিজেদের বিজয়ী ঘোষণা করছে তারা।

ট্রাম্পের প্রচারণা শিবিরের জ্যেষ্ঠ সহযোগী জ্যাসন মিলার বলেন, এ সপ্তাহের শেষের দিকে পুরো জাতির কাছে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে যে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স পরবর্তী চার বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

ট্রাম্প কি এখানো জয়ী হতে পারেন?

হোয়াইট হাউসে যাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ২৭০ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পাওয়ার দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন বাইডেন। ডেমোক্র্যাটরা পেয়েছেন ২৬৪টি ভোট। আর ২১৪টি পেয়েছেন রিপাবলিকানরা।

জাতীয় পর্যায়ে নয়, বরং রাজ্য পর্যায়ে ভোট দিয়ে মার্কিনরা প্রতিনিধি নির্বাচন করেন। জনসংখ্যার ওপর ভিত্তি করে রাজ্যে ইলেকটোরাল কলেজ ভোট নির্ধারণ করা হয়। ৫০টি রাজ্যে মোট ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ৫৩৮টি।

ক্ষমতায় থাকার জন্য ট্রাম্পকে অবশ্যই জর্জিয়া (ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ১৬), নর্থ ক্যারোলিনা (ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ১৫), পেনসিলভানিয়ায় (ইলেকটোরাল ভোট ২০) জয়ী হতে হবে। পাশাপাশি ক্ষমতায় থাকার জন্য অ্যারিজোনা (ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ১১) এবং নেভাদার (ইলেকটোরাল কলেজ ভোট ৬) মধ্যে যে কোনো একটিতে জয় পেতে হবে।

ট্রাম্প নর্থ ক্যারোলিনা এবং জর্জিয়ায় এগিয়ে আছেন। নেভাদায় অধিকাংশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। সেখানে অল্প ব্যবধানে অবস্থান করছেন ট্রাম্প-বাইডেন।

ট্রাম্পের প্রচারণা শিবিরের প্রত্যাশা তারা এখনো অ্যারিজোনায় জয়ী হতে পারবে। এ রাজ্যের ৯০ শর্তাশ ভোট গণনা শেষ হয়েছে। মার্কিন গণমাধ্যম সিবিএস জানিয়েছে, রাজ্যটিতে জয়ের দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন ডেমোক্র্যাটরা।

তবে রাজ্যের গভর্নর ডৌগ ডুসে জানিয়েছেন, গত রাত থেকে আজকে সকাল পর্যন্ত রাজ্যের ভোটের ফলাফল ঘণ্টায় ঘণ্টায় পরিবর্তন হচ্ছে।

তিনি বলেন, এখনো কয়েক হাজার ভোট গণনা বাকি। যা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কাউকে বিজয়ী ঘোষণার আগে অবশ্যই ভোট গণণা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের ধৈর্য ধরে অপক্ষো করতে হবে। তার এমন বিবৃতি মার্কিন গণমাধ্যম ফক্স নিউজের প্রতিবেদনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। এর আগে ফক্স জানায় অ্যারিজোনায় বাইডেন জয়ী হয়েছেন।

আইনি চ্যালেঞ্জগুলো কী?

ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট আনুষ্ঠানিকভাবে উইসকনসিন রাজ্যের ভোট পুনরায় গণনা আহ্বান জানিয়েছেন। তার অভিযোগ সেখানে ভোট গণনায় বেশ কিছু অনিয়ম হয়েছে।

যে পরিমাণ ভোট গণনা বাকি তাতে ধারাণা করা হচ্ছে দু’পক্ষের ব্যবধান এক শতাংশেরও কম। এসব ক্ষেত্রে একজন প্রার্থী পুনরায় ভোট গণনার আবেদন জানাতে পারেন।

মিশিগানে ভোট গণনা বন্ধে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে রিপাবলিকান প্রচারণা শিবির। তাদের অভিযোগ, ভোট গ্রহণ এবং গণনা পর্যবেক্ষণের জন্য তাদের সেখানে প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি।

মিশিগানের ডেট্রয়েড শহরের পুলিশ বুধবার বিকেলে জানিয়েছে, একদল বিক্ষোভকারী ভেতরে প্রবেশে করে ভোট গণনা পর্যবেক্ষণ করতে চাইলে তারা নিরাপত্তা জোরদার করে। ডেট্রয়েড ফ্রি-প্রেস জানিয়ে সেখানে ইতোমধ্যে ২০০ লোক ভোট গণনা পর্যবেক্ষণ করছেন। সেখানে জানালা বন্ধ করে ভোট গণনার কথা উল্লেখ করেছে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার আগ পর্যন্ত পেনসিলভানিয়ায় ভোট গণনা বন্ধ রাখার দাবি জানিয়ে দুটি মামলা করেছে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির। গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যগুলোতে বিভিন্ন দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন প্রেসিডেন্ট। সে রাজ্যগুলোতে এখনো লাখ লাখ ভোট গণনা বাকি।

জর্জিয়ায় ভোট গণনা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন ট্রাম্প। তার প্রচারণা পর্যবেক্ষক জানিয়েছেন দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যের চাথাম কাউন্টিতে ৫৩ জন মৃত ব্যক্তির ভোট অবৈধভাবে একটি ফাইলে যুক্ত করতে দেখেছেন তিনি।

২০১৬ সালের নির্বাচনে উইসকনসিন, মিশিগান এবং পেনসিলভানিয়ায় জয় পান ট্রাম্প। বুধবার সকালে হোয়াইট হাউস থেকে জানান, তিনি নির্বাচন জয়ী হয়েছেন। তিনি নির্বাচনকে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারেন বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

আইনি লড়াই পরিচালনার জন্য রিপাবলিকান দাতাদের অর্থ দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির। রিপাবলিকান ন্যাশনাল কমিটির চেয়ারম্যান রোন্না ম্যাকড্যানিয়েল বলেন, যুদ্ধ এখনো শেষ হয়নি, আমরা ময়দানে আছি।

বাইডেনের রানিংম্যাট কামলা হ্যারিস এক টুইট বার্তায় আইনি লড়াই পরিচালনার জন্য ডেমোক্র্যাট দলীয় সমর্থকদের কাছে ৫ ডলার করে অর্থ সহায়তা চেয়েছেন।

বাইডেনের প্রচারণা শিবিরের জ্যেষ্ঠ আইন উপদেষ্টা বব বাউর জানিয়েছেন, ভোট বাতিলের আইনত কোনো ক্ষমতা নেই ট্রাম্পের।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *