346017

কারচুপির অভিযোগ ট্রাম্পের, প্রত্যাখ্যান পর্যবেক্ষক সংস্থার

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট ও রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে তার এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে একটি আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক সংস্থা।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার খবরে বলা হয়, দ্য অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ (ওএসসিই) নামের পর্যবেক্ষক সংস্থা মার্কিন নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে মত দিয়েছে। এর ফলে প্রত্যাখ্যান হয়েছে ট্রাম্পের দাবি।

ওএসসিই বলছে, ‘কোভি-১৯ এর কারণে নানা ধরনের চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও নির্বাচনটি প্রতিযোগিতামূলক এবং ভালোভাবে পরিচালিত হয়েছে। একই সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারণায় গভীর রাজনৈতিক মেরুকরণ নীতিগত বিতর্ককে আড়াল করে ফেলেছে এবং পদ্ধতিগত কারচুপির ভিত্তিহীন অভিযোগকে সামনে নিয়ে এসেছে।’

ট্রাম্পের করা অভিযোগের বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটি বলছে, ‘পদ্ধতিগত ত্রুটি নিয়ে ভিত্তিহীন অভিযোগ, বিশেষ করে বর্তমান প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে; তাও আবার নির্বাচনের রাতে এ ধরনের বিষয়গুলো গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান নিয়ে জনগণের আস্থাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে।’

এদিকে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ভোটের আগে পোস্টাল এবং আগাম ভোট নিয়ে শত শত মামলা হয়েছে। ব্যালট পোস্ট করা ও তা গ্রহণ করার সময়সীমা এবং প্রত্যক্ষদর্শীর স্বাক্ষর থাকার বিষয়গুলো নিয়ে এই মামলাগুলো হয়েছে। রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত রাজ্যগুলো বলছে, জালিয়াতি কমিয়ে আনার জন্য বিধিনিষেধ আরোপের দরকার ছিল। আর ডেমোক্র্যাটরা বলছে, সেগুলো ছিল নাগরিক অধিকার চর্চায় বাধা দেওয়ার চেষ্টা।

নির্বাচনের রাতে বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার বক্তব্যে ভোটকে মার্কিন জনগণের ওপর একটি প্রতারণা বলে উল্লেখ করেছিলেন। তিনি নির্বাচনে জালিয়াতি হওয়ার সরাসরি অভিযোগও করেন।

মার্কিন নির্বাচনে উত্তরাঞ্চলের ‘ব্যাটল গ্রাউন্ড’ হিসেবে পরিচিত মিশিগান ও উইসকনসিনে জেতার পর ডেমোক্রেটদের ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট ২৬৪-তে পৌঁছেছে। ট্রাম্পের ইলেক্টোরাল ভোটের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১৪। মোট ৫৩৮টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে প্রার্থীর প্রয়োজন ২৭০টি।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *