312566

কেন্দ্রে এসএসসি পরীক্ষার্থীর মাথা ফাটালেন শিক্ষক

এসএসসি পরীক্ষার্থীকে ক্লিপবোর্ড ছুড়ে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রে দায়িত্বরত এক শিক্ষক। আজ সোমবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে মাদারীপুর সদর উপজেলার আছমত আলী খান পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত রাকিবুল মৃধা মাদারীপুর পৌর শহরের ইউনাইটেড ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। সে সদর উপজেলার রাস্তি ইউনিয়নের পূর্ব রাস্তি গ্রামের জব্বার মৃধার ছেলে। আর অভিযুক্ত শিক্ষকের নাম আবুল হোসেন। তিনি আছমত আলী খান পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের খণ্ডকালীন ইংরেজি শিক্ষক। এই ঘটনার পর ওই কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। পরে কেন্দ্র সচিব ও উপজেলা প্রশাসন অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে সব দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেন।

প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক শিক্ষার্থী ও কেন্দ্রে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, আজ ওই কেন্দ্রে এসএসসির ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিষয়ে পরীক্ষা দিতে আসে ভুক্তভোগী রাকিবুল। সকাল পৌনে ১০টার দিকে অন্য পরীক্ষাদের সঙ্গে সে কক্ষে প্রবেশ করে। এ সময় রাকিবুল মৃধা উত্তরপত্র সম্পূর্ণ করছিলেন না অভিযোগে ওই কক্ষের পরিদর্শক আবুল হোসেন তার ওপর ক্ষেপে যান। এক পর্যায়ে রাকিবের ব্যবহৃত ক্লিপবোর্ডটি তিনি ছুড়ে মারেন। এতে ক্লিপবোর্ডের স্টিলের পাতে তার মাথা কেটে রক্ত ঝড়তে থাকে। পরে অন্য শিক্ষকরা দ্রুত এগিয়ে গিয়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা করান। এতে প্রায় আধ ঘণ্টা পরে ওই শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেয়।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আবুল হোসেন বলেন, ‘আমি ইচ্ছে করে ওই শিক্ষার্থীকে ক্লিপবোর্ড নিক্ষেপ করিনি। ওই ছাত্রকে বার বার বলার পরেও উত্তরপত্রের ওএমআর ঠিক করছিল না। পরে তার ক্লিপবোর্ড রাগ হয়ে ছুড়ে মারলে কিছুটা কেটে গেছে। এর জন্যে আমি আত্মরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি।’

কেন্দ্র সচিব মো. হুমায়ন কবির বলেন, ‘আমি তাৎক্ষণিকভাবে ওই শিক্ষককে সকল প্রকার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়েছি। ওই শিক্ষক আছমত আলী খান পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের খণ্ডকালীন ইংরেজির শিক্ষক। তাকে ওই স্কুল থেকেও অব্যাহতি দেওয়ার সুপারিশ করা হবে।’

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *