298240

নওগাঁয় মাকে জবাই করে মেয়েকে ধর্ষণ

নওগাঁর মান্দায় মাকে গলাকেটে হত্যার পর অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মেয়েকে ধর্ষর্ণের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার প্রসাদপুর ইউনিয়নের দ্বারিয়াপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার বেলা ১১ টার দিকে পুলিশ গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে।

নিহতের নাম নাসিমা আক্তার সাথী (৪০)। তিনি দ্বারিয়াপুর গ্রামের এমদাদুল হক মন্ডলের স্ত্রী। এ ঘটনায় সামিউল ইসলাম সাগর (২২) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটক সাগর উপজেলার কুসুম্বা ইউনিয়নের চকশ্যামরা গ্রামের জান মোহাম্মদের ছেলে।

নিহতের স্বামী এমদাদুল হক নাটোরর একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে নৈশপ্রহরীর চাকরি করেন। ঘটনার রাতে তিনি নাটোরে ছিলেন। বাড়িতে মেয়েকে নিয়ে রাতযাপন করছিলো গৃহবধূ নাসিমা আক্তার সাথী।

পুলিশ জানায়, নিহতের ছোট মেয়ের সাথে সাগরের প্রেমের সর্ম্পক ছিল। সম্প্রতি সেই সর্ম্পকে টানাপোড়ন শুরু হয়। ঘটনার রাতে প্রেমিকাকে হত্যার উদ্দেশ্যে একটি চাকু নিয়ে তাদের বাড়িতে যায় সাগর। বাড়ির পেছনের দিক দিয়ে ছাদে উঠে অপেক্ষা করতে থাকে। এসময় সাগর যৌন উত্তেজক পানীয় পান করে। পরে ছাদ থেকে নেমে প্রেমিকার ঘরে যায়।

এসময় তরুনীর মা নাসিমা আক্তার সাথী জেগে উঠলে ধারালো চাকু দিয়ে সাথীর শরীরের একাধিক আঘাত করে। এতে সাথী জ্ঞান হারিয়ে ফেললে তাকে জবাই করে হত্যা করে সাগর।
পরে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নিহতের মেয়েকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাগর এসব তথ্য দিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন মান্দা থানার ওসি মোজাফ্ফর হোসেন।ওসি বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। একইসাথে নিহতের মেয়েকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়েছে।এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *