রিজার্ভ চুরি : যুক্তরাষ্ট্রে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক আজ

reserve20160816093310বাংলাদেশের রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধারে ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে বসছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক, সুইফট কর্তৃপক্ষ ও বাংলাদেশ ব্যাংক। চুরি হওয়া অর্থ উদ্ধারে সব পক্ষের সহায়তা চাওয়ার পাশাপাশি এ সংক্রান্ত আইনি প্রক্রিয়াও খতিয়ে দেখবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এ উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রোববার ঢাকা ত্যাগ করেছে। আজ মঙ্গলবার প্রতিনিধি দলটির সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে সভা করার কথা রয়েছে।

এ সফরে প্রতিনিধি দলটি ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক (ফেড), সোসাইটি ফর ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ইন্টার ব্যাংক ফিন্যান্সিয়াল টেলিকমিউনিকেশন (সুইফট), ফিন্যান্সিয়াল ক্রাইম এনফোর্সমেন্ট নেটওয়ার্ক (ফিনসেন), যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস, দ্য ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) ও যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক করবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসানের নেতৃত্বে রোববার রাতে প্রতিনিধি দলটি ঢাকা ত্যাগ করে। দলের অন্য সদস্যরা হলেন- বাংলাদেশ ব্যাংকের আইনজীবী আজমালুল হোসেন কিউসি, ইনফরমেশন সিস্টেমস ডেভেলপমেন্ট বিভাগের মহাব্যবস্থাপক দেবদুলাল রায়, অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড বাজেটিং বিভাগের উপমহাব্যবস্থাপক জাকের হোসেন ও বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের যুগ্ম পরিচালক আবদুর রব।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, ১৬ থেকে ১৯ আগস্ট প্রতিনিধি দলটি বিভিন্ন পক্ষের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত সিডিউল অনুযায়ী বৈঠকগুলোতে অংশ নেবে। এর মধ্যে ১৬ ও ১৭ আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক, নিউইয়র্ক ফেড ও সুইফটের সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় সভা করবে প্রতিনিধি দল। ২০ আগস্ট তাদের দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক ফেডারেল রিজার্ভে বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি করে সাইবার অপরাধীরা। এর মধ্যে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনের আরসিবিসি ব্যাংকে চার একাউন্টের মাধ্যমে হাতিয়ে নেয় দুর্বৃত্তরা। রিজার্ভের অর্থ পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ফিলিপাইনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ৫ আগস্ট আরসিবিসিকে ১০০ কোটি পেসো বা ২ কোটি ১০ লাখ ডলার জরিমানা করে। এর অর্ধেক ৫০ কোটি পেসো শুক্রবার পরিশোধ করেছে আরসিবিসি।

উল্লেখ্য, এর আগে গত ১০ মে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় সুইজারল্যান্ডের ব্যাসেল শহরে। ওই বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, নিউইয়র্ক ফেডের প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম ডাডলি ও সুইফট কর্তৃপক্ষ উপস্থিত ছিলেন। ওই বৈঠক শেষে যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয় এফআরবি নিউইয়র্কের ওয়েবসাইটে। তাতে বলা হয়, চুরি যাওয়া রিজার্ভের অর্থ উদ্ধারে একযোগে কাজ করবে বাংলাদেশ ব্যাংক, এফআরবি নিউইয়র্ক ও সুইফট। এ ছাড়া বৈঠকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাইবার এবং অন্যান্য কাঠামোগত নিরাপত্তা ত্রুটি নিয়ে আলোচনা হয়। পরস্পরের মধ্যে তথ্য বিনিময়, চুরি যাওয়া অর্থ উদ্ধার এবং দোষীদের বিচারের আওতায় আনতে এই তিনপক্ষ একযোগে কাজ করতে সম্মত হয়।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *