চমক নিয়ে কলকাতা থেকে ঢাকায় ফিরলেন জয়া

Jaya-Ahasanকলকাতা থেকে ঢাকায় ফিরেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। পূর্ণদৈর্ঘ্যের পাশাপাশি চলতি বছর ‘ভালোবাসার শহর- সিটি অব লাভ’ নামের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্যে চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এটিই তার প্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্যে চলচ্চিত্র।

দুই বাংলার অভিনয় জগতের অন্যতম নাম জয়া আহসান। টিভি নাটকের মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু হলেও এই সময়ে চলচ্চিত্রেই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তিনি। বড় পর্দায় শুরুতে খুব একটা আলোচনায় না থাকলেও ‘গেরিলা’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া জাগান জয়া। শুধু তাই নয়, প্রশংসা পাওয়ার পাশাপাশি তিনি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ছবিটিতে অভিনয় করে প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। দেশীয় চলচ্চিত্র অঙ্গনে সুবাস ছড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে কলকাতাও অভিনয়ের সুযোগ পান। সেখানেও নিজের যোগ্যতার কথা জানান দেন জয়া। এরই মধ্যে কলকাতার বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করে আলোচনার শীর্ষে উঠে এসেছেন।

এ প্রসঙ্গে জয়া বলেন, ভালোবাসার শহর মূলত সাধারণ মানুষের জীবনের মানবিক গল্পের ছবি। আমি মনে করি এ দেশের প্রত্যেক মানুষেরই দেখা উচিত এই ছবিটি। কারণ আমাদের জীবনেরই গল্প ফুটে উঠেছে এতে। আমি ব্যক্তিগতভাবে ভালোবাসার শহরে কাজ করে তৃপ্ত। এরই মধ্যে আকরাম খান পরিচালিত অনুদানের চলচ্চিত্র ‘খাঁচা’র কাজ শেষ করেছেন জয়া। পাশাপাশি কলকাতায় মনোজ মিশিগানের নির্দেশনায় ‘আমি জয় চ্যাটার্জি’ ছবির কাজে হাত দিয়েছেন তিনি। এতে জয়ার বিপরীতে অভিনয় করবেন আবীর চ্যাটার্জি।

কলকাতায় তার অভিনীত আরো মুক্তির অপেক্ষায় আছে অরিন্দম শীল পরিচালিত ‘ঈগলের চোখ’ চলচ্চিত্রটি। ১২ই আগস্ট ছবিটি মুক্তি পাবে।

এ প্রসঙ্গে জয়া বলেন, এ ছবিটির গল্প একটু অন্যরকম। দর্শকের জন্য বিশেষ চমক রয়েছে। আশা করছি সবার ভালোলাগবে। এখন পর্যন্ত দু-দুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন জয়া। নাসির উদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত ‘গেরিলা’ (২০১১) এবং রেদওয়ান রনি পরিচালিত ‘চোরাবালি’ (২০১২) চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন।

জয়া বলেন, সত্যি বলতে কী ভীষণ ভালো লেগেছিল। ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। আমি আমার কাজের প্রতি ভালোলাগা ভালোবাসার প্রাপ্য সম্মান পেয়েছি। আমি তাতেই সন্তুষ্ট। টিভি পর্দায় ক্যারিয়ার শুরু হলেও এ মুহূর্তে চলচ্চিত্রের ব্যস্ততার কারণে সে জায়গাটি থেকে বিরতি নিয়েছেন জয়া। তবে সে টিভি অঙ্গনের প্রতি যে ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা সেটা কখনোই হারাননি।

এ বিষয়ে জয়া বলেন, ছোট পর্দায়ই কিন্তু আমাকে আজকের জয়া আহসান হিসেবে তৈরি করেছে। সে কারণে ছোট পর্দার নিয়মিত যারা দর্শক তাদের প্রতি  শ্রদ্ধা রেখেই বলছি আপাতত আমি ছোট পর্দায় বিরতি নিয়েছি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কারণেই। কয়েক বছর ধরে আমি ছোট পর্দার কাজ করছি না। সবচেয়ে বড় কথা হলো চলচ্চিত্রে কাজ করতে হলে সময়টা একটু বেশিই দিতে হয়। সবমিলিয়ে এ মুহূর্তে টিভি পর্দায় কোনো কাজ করা হচ্ছে না।

২০১০ সালে ‘ডুব সাঁতার’, ‘ফিরে এসো বেহুলা’  ২০১১ সালে ‘গেরিলা’, ‘চোরাবালি’, ২০১৩ সালে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী’ এবং সর্বশেষ  ২০১৬ সালে ‘পূর্ণদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী টু’ ছবিতে অভিনয় করে নায়িকা হিসেবে আলোচনায় ছিলেন জয়া।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *