মাননীয় রেলমন্ত্রী, টিকেটের দামের চেয়ে টাকা বেশি নেয়ার কি প্রতিকার নেই?

Bhairab Bazar Rail Stationনির্ধারিত দুরত্বের জন্য নির্দিষ্ট ভাড়া টিকেটে প্রিন্ট করে উল্লেখ করা হলেও স্টেশনগুলোতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই টিকেটের দাম বেশি নেওয়া হয়। এ নিয়ে বচসাও হয় নিয়মিত। তবুও যেন দেখার কেউ নেই।

এই বিষয় নিয়ে ভৈরব বাজার থেকে একজন পাঠক ইনবক্সে একটি লেখা ও ছবি পাঠিয়েছেন। নিউজওয়ার্ল্ডবিডি ডট কমের পাঠকদের জন্য এটি প্রকাশ করা হল।

লোকটি ভৈরব বাজার রেলস্টেশন এর টিকেট মাস্টার, ৮৫ টাকার টিকেট ১৫০ টাকার নিচে দিবেইনা।

আমি ছবি তুলতেই সে চিৎকার করতে লাগলো কার অনুমতি নিয়ে আমি ছবি তুলেছি, কেন তুলেছি?

আমি বললাম আপনি কার অনুমতি নিয়ে বেশি টাকা নিচ্ছেন? সে জানাল অনুমতি আছে।

এক রেলওয়ে পুলিশ বলছে, ভাই এদের সাথে পারবেন না। স্টেশনের ঠিক পাশেই থানা, আমি থানাতে ঢোকার মুখেই দেখি আমার ডিপার্টমেন্ট এর ছাত্র (সে পুলিশ)। অনেক খাতিরজত্ন করে বলছে স্যার ভিতরে আসেন।

আমি বাইরে দাঁড়িয়েই বললাম স্টেশনের টিকেটের এত অনিয়ম কেন?

আমার ছাত্রের জবাব, বাদ দেন, স্যার এদের সাথে এমপি-মন্ত্রীও পারবেন না।

এখন আমার প্রশ্ন হলো, মাননীয় রেলপথ মন্ত্রী ও সচিব মহোদয়, সবিনয়ে জানতে চাই এসব কালোবাজারি আর কালো টিকেট মাস্টারীদের কারা অনুমতি দিয়েছে?

কিছুই যখন করার নাই তখন অন্তত এদের দেখার জন্য এই ছবি সবাই শেয়ার করুন। জনমতের কারণে হয়তো বিচার হতেও পারে।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *