ভারতবিরোধী মন্তব্যের দায়ে বিক্ষোভের মুখে কলকাতার কনসার্টে মাইলস বাদ

MILESমৌসুমী দাস, কলকাতা থেকে।

বাংলা ব্যান্ড সঙ্গীতের জনপ্রিয় দল মাইলস-এর কনসার্ট করতে যাওয়ার কথা ছিল কলকাতায় আগামী ১৩ আগস্ট। কিন্তু, মাইলসের সেখানে যাওয়া নিয়ে কলকাতাসহ ভারতীয় বাঙালিদের ফেসবুকে নানা ধরনের সমালোচনা এবং কলকাতায় আয়োজকদের প্রতি বিক্ষোভের কারণে অবশেষে বুধবার সেই কনসার্ট বাতিল করা হয়েছে। ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে রেড এফএমের আয়োজনে আজাদী কনসার্ট নামের ওই একটি কনসার্টে ‘ফসিল্‌স’, ‘মাইল্‌স’ এবং পাপনের পারফর্ম করার কথা ছিল। মাইলস- এর কয়েকজন সদস্য ধারাবাহিকভাবে ভারত বিরোধী মন্তব্য করেন- এই অভিযোগে সামাজিক মাধ্যমে প্রচারণার পরে কলকাতায় তাদের নির্ধারিত অনুষ্ঠানটি বাতিল করা হয়। ওই প্রচারণাকে সমর্থন জানিয়ে মাইলসের সঙ্গে একই মঞ্চে গান গাইতে অস্বীকার করে কলকাতার ব্যান্ড ফসিলস-ও। কলকাতার ব্যান্ড ফসিলসের রুপম ইসলাম ঘোষণা দেন, মাইলসের সাথে এক মঞ্চে উঠবেন না। মূলত এরপরই ঘটনা দ্রুত পরিবর্তন হতে থাকে।

ঘটনা আসলে কি?

যদি ‘মাইল্‌স’ পারফর্ম করে, তাহলে সেই মঞ্চে ‘ফসিল্‌স’ পারফর্ম করবে না। যদি ‘মাইল্‌স’ পারফর্ম করে, তাহলে রক-শ্রোতারা সেই অনুষ্ঠানেই যাবেন না। ‘বয়কট মাইল্‌স’— এই দাবিতেই উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া। এমনকী, কনসার্টের অর্গানাইজারদের অফিসের সামনে অবস্থান-বিক্ষোভও দেখাতে চলেছেন বাংলা রকের ভক্তেরা। বুধবার বালিগঞ্জ ফাঁড়ির সামনে ‘বয়কট মাইল্‌স’এর দাবিতে জমায়েত হন প্রায় শ’দেড়েক রক-ভক্ত।

কিন্তু কেন এই বয়কট?

‘মাইল্‌স’ এর দুই সদস্য হামিন আহমেদ এবং শাফিন আহমেদের অনবরত ভারত-বিরোধী ফেসবুক পোস্ট এবং মন্তব্য। যে মন্তব্যে কখনও বলা হয়েছে, ‘ভারত বিশ্বের ধর্ষণ-রাজধানী’। শাফিনের পোস্ট, ‘আমার বিরক্তি প্রকাশের কোনও ভাষা নেই। রেপ ক্যাপিটাল অফ দ্য ওয়ার্ল্ড গেটিং সিকার বাই দ্য ডে’! মাসখানেক আগেই হামিন ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন, ‘দিস ইন্ডিয়া ইজ আ ফা#ড আপ কান্ট্রি অ্যান্ড ইট’স গভর্নমেন্ট ইজ ফা#ড আপ ইকুয়্যালি…’! শাফিন এ-ও লিখেছিলেন, ‘বাংলাদেশের এবার সাবধান হওয়া প্রয়োজন। চেকপয়েন্টে পরীক্ষাকেন্দ্র বসানো উচিত। সোয়াইন ফ্লু ছড়িয়ে পড়ছে ভারতে’। বাংলাদেশে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী পাঠানো নিয়েও তিনি লেখেন, ‘…বিগিনিং অফ দি এন্ড অর এন্ড অফ বিগিনিং’। এই কারণেই বয়কটের ডাক।

এই ধরনের দেশবিরোধী মন্তব্য মেনে নিতে পারছেন না রূপম ইসলাম। স্পষ্ট বলে দিলেন, ‘‘মাইল্স’এর ভক্ত আমরা সকলে। কিন্তু তাদের এই গুণটা যখন থেকে প্রকাশিত হয়েছে, তখন থেকে আর নয়। যে কোনও ছুতোয় ভারতকে গালি দেওয়াটা ওদের একটা বড় উদ্দেশ্য। কথায় কথায় ভারতকে টেনে এনে গালি দেওয়া। এই ধরনের মানুষ ভারতেই আবার অনুষ্ঠান করতে আসার স্বপ্ন দেখে কী করে? অনুষ্ঠান করতে হলে নিশ্চয়ই ভারতীয় হাইকমিশনে যেতে হয় ভিসা জোগাড় করতে। সেটা কীভাবে হয়? তার যৌক্তিকতা কী, সেটা বুঝতে পারছি না! অর্গানাইজারেরাও কী করে এই ধরনের ব্যান্ডকে স্বাধীনতা দিবসের কনসার্টের জন্য নির্বাচন করতে পারে, বুঝতে পারছি না! তা সত্ত্বেও আমরা প্রথমে অনুষ্ঠান করতে রাজি হয়েছিলাম। তার পরে যে এত মানুষের দাবি থাকবে আমরা অনুষ্ঠান থেকে সরে দাঁড়াই, সেটা বুঝতে পারিনি। যখন বুঝতে পারলাম তাঁরা চাইছেন না আমরা একই মঞ্চ শেয়ার করি, তখন সরে দাঁড়ালাম।’’ বিক্ষোভ প্রসঙ্গে বললেন, ‘‘ওই কনসার্টে শ্রোতারা ‘মাইল্‌স’এর মতো ব্যান্ডকে চান না। যারা ভারতকে সমানে গালাগালি দেয়।’’

ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে কলকাতায় একটি কনসার্টের আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ১৩ অগস্ট সেই কনসার্ট হওয়ার কথা। সেখানেই এক মঞ্চে পারফর্ম করার কথা ‘ফসিল্‌স’, ‘মাইল্‌স’ এবং পাপনের। কিন্তু ‘ফসিল্‌স’ তাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে জানিয়েছে, ‘১৩ অগস্ট ‘ফসিল্‌স’এর পারফরম্যান্স এখনও নিশ্চিত নয়। লাইন-আপ নিয়ে আমরা অর্গানাইজারদের সঙ্গে কথা বলছি। যদি লাইন-আপ পরিবর্তিত করা হয়, তবেই ‘ফসিল্‌স’ পারফর্ম করবে’। এই ঘোষণার পরেই ফেসবুকে ‘বয়কট মাইল্‌স’ নামে একটি পেজ তৈরি হয়। সেখানে রক-ভক্তেরা জমায়েত হতে শুরু করেন। যার উদ্দেশ্য, কনসার্ট অর্গানাইজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো। পাপন আসছেন কি না, সে নিয়ে অবশ্য ‘বয়কট মাইল্‌স’এর ডাক দেওয়া রক-জনতা এখনও নিশ্চিত নন।

এ ব্যাপারে মাইলসের বক্তব্য জানতে পড়ুন:

o ভারত বিদ্বেষ নয়, এটা দেশপ্রেম: মাইলসের শাফিন

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *