340277

হিজাব পরায় প্রতিযোগিতা থেকে বাদ শিক্ষার্থী

হিজাবের পরার কারণে এক শিক্ষার্থীকে স্কুল ভলিবল প্রতিযোগিতা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের টেনেস অঙ্গরাজ্যের নাশভিলের ভেলর কলেজিয়েট একাডেমিতে নবম গ্রেডের শিক্ষার্থী নাজাহ আকিলকে বাদ দেওয়া হয়।

খেলা শুরু হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে রেফারি এসে নাজাহ ও তার সহকারী কোচকে বলেন, শিক্ষার্থীর হিজাব ন্যাশনাল ফেডারেশন অব স্টেট স্কুল এসোসিয়েশন-এর নীতি লঙ্ঘন করছে। ন্যাশনাল বোর্ড দেশের মাধ্যমিক স্কুলে খেলার কিছু নির্দেশনা দেয়। নাজাহ হিজাব পরিধান করে খেলতে বিশেষ অনুমোদন লাগবে।

বিষয়টি জানা না ছিল না নাজাহ ও তার কোচের। সে ইতিপূর্বে হিজাব পরিধান করেই অনেক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে।

যোগাযোগের অভাব ও নিয়মের কঠোর প্রয়োগের ফলে নাজাহ কান্না করে বলেন, ‘আমি এ জন্য কাঁদছি না যে আমি কষ্ট পেয়েছি। বরং আমি কাঁদছি, কারণ আমি ক্রুদ্ধ। আমি এটাকে অন্যায় বলে মনে করি।’

স্কুলের ভলিবল প্রতিযোগিতা দেখার জন্য সেখানে উপস্থিত ছিলেন নাজাহের মা আলিয়া। তিনি বলেন, আমার বাচ্চা কাঁদছে। কারণ সে এমন সিদ্ধান্তে মর্মাহত হয়েছে। এটি পুরোপুরি অন্যায়। ওর সঙ্গে ধর্মের কারণে এমনটি করা হলো। হিজাবের কারণে এমন আচরণ করা হলো।’

আমেরিকার মুসলিম এডভাইজারি কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক সাবিনা মহিউদ্দিন এক বিবৃতিতে বলেন, ‘সংবিধান প্রদত্ত অধিকার অনুসরণ করে টেনেসের অনুষ্ঠিত খেলায় অংশগ্রহণের জন্য একজন মুসলিম মেয়েকে কেন আলাদা নিয়ম অনুসরণ করতে হবে? এ নিয়মটি একজন ১৪ বছরের মেয়েকে বন্ধুদের সামনে অপমানের মতো। অথচ দেশের অন্যত্র আমাদের মেয়েরা খেলছে। আইনটি মুসলিম মেয়েদের জন্য এমন যেন মুসলিম হওয়ার জন্য তাদের অনুমতির প্রয়োজন।’

সূত্র : হাফপোস্ট

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *