262723

ভালোবাসা দিবসে সাকিবের আবেগঘন স্ট্যাটাস

স্পোর্টস ডেস্ক: ২০১২ সালের ১২ ডিসেম্বর উম্মে আহমেদ শিশিরের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন বাংলাদেশ ক্রিকেট সুপারস্টার সাকিব আল হাসান। ইতিমধ্যে এ সুপার কাপলের বিয়ের সেই ম্যাজিক্যাল তারিখের (১২.১২.১২) ছয় বছর পূর্ণ হয়েছে। সাকিব-শিশির এ যাবতকাল বাংলাদেশে সবচেয়ে সেলিব্রেটি দম্পতি। বিশ্বের আকর্ষণীয় ক্রিকেটার দম্পতিও। দাম্পত্য জীবনে অর্ধযুগের পথচলায় এ জুটির সংসারে রয়েছে একটি কন্যাসন্তান। ২০১৫ সালের ৯ নভেম্বর তাদের ঘর আলো করে আসে নতুন অতিথি আলাইনা হাসান অব্রি।

কন্যা-অন্তঃপ্রাণ সাকিব বেশিক্ষণ মেয়েকে ছাড়া থাকতে পারেন না। সবসময় সুশ্রী ও মিষ্টি স্বভাবের অব্রির সঙ্গে আড্ডা-খুনসুঁটিতে মেতে থাকেন টাইগারদের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। প্রিয়তমা স্ত্রীকেও প্রচণ্ড ভালোবাসেন তিনি। সব অনুপ্রেরণার উৎস প্রিয় সহধর্মিণী ও কলিজার টুকরা মেয়ে! সেই রেশেই বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে (১৪ ফেব্রুয়ারি) আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে সাকিব লিখেছেন- আমার এবং শিশিরের দাম্পত্য জীবনের প্রায় ছয় বছর পার হতে চললো, সৃষ্টিকর্তার অশেষ রহমতে আমাদের জীবনে এসেছে ফুটফুটে এক সন্তান- আলাইনা। আমার পুরো জগতটাই এখন এ দুজন ভালোবাসার মানুষ দিয়ে ঘেরা। তাদের ছাড়া জীবনটা কল্পনাই করতে পারি না আমি। তোমাদের দুজনকেই আমি প্রচণ্ড ভালোবাসি। আমার পৃথিবীর সবচেয়ে প্রিয় এই দুজন মানুষকে জানাই ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা।

সাকিবপত্নী শিশিরের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে। তিনি পরিবারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে থাকতেন। সেখানে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করেছেন। ইংল্যান্ডে কাউন্টি ক্রিকেট খেলতে গিয়ে দুজনের পরিচয়। এর পর প্রণয়। শেষ পর্যন্ত প্রণয় পরিণত হয় পরিণয়ে। ঢাকঢোল পিটিয়ে জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে ২০১২ সালের ১২ ডিসেম্বর বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হন তারা।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *