192436

মনোনয়ন না পেলেও ঢাকার উন্নয়নে পাশে থাকব: আতিকুল

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নের ক্ষেত্রে দলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাবেন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থী ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, মনোনয়ন না পেলেও ঢাকার উন্নয়নে পাশে থাকবেন।

আজ সোমবার শেষ বেলায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে মনোনয়ন আবেদন ফরম জমা দিয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আতিকুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে যদি মনোনয়ন না-ও পাই, তাতে আমি দুঃখ পাব না। মনোনয়ন না পেলেও ঢাকার উন্নয়নে আমি সব সময় মনোনীত প্রার্থীর পাশে থাকব।’

এর আগে আজ বিকালে ধানমন্ডির আবাহনী ক্লাব মাঠের সামনে জমায়েত নিজের কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে ধানমন্ডির কার্যালয়ে যান আতিকুল ইসলাম। এরপর মনোনয়নপত্রটি জমা দেন দলটির দপ্তর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপের হাতে।

মনোনয়নপত্র দাখিলের সময় আতিকুলের সঙ্গে ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বিজেএমইএর সাবেক সভাপতি এ কে আজাদ, পীরগাছার সংসদ সদস্য টিপু মুন্সী, ডিএনসিসির সাবেক মেয়র আনিসুল হকের একান্ত সচিব ও আতিকুল ইসলামের নির্বাচনী সমন্বয়ক এ কে এম মিজানুর রহমানসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী নেতা।

মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন আতিকুল। ঢাকা উত্তরকে সাজানোর জন্য তার পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে চাইলে সাবেক বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ‘যদি আমি মেয়র হিসেবে আসতে পারি তাহলে প্রথমে মেয়র আনিস ভাইয়ের অসমাপ্ত কাজগুলো সচল করব।’

ভিন্ন পেশা থেকে রাজনীতির মতো বন্ধুর পথে পা দেয়াকে কীভাবে দেখছেন জানতে চাইলে এই ব্যবসায়ী নেতা বলেন, ‘কীভাবে নিরাপদ ঢাকা, দূষণমুক্ত ঢাকা গড়তে হয়, তা একজন ব্যবসায়ী দেখিয়ে গেছেন। তিনি আনিসুল হক, রাজনীতিতে নতুন ছিলেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ভিশন ২০২১ ও ২০৪১ গড়ার ক্ষেত্রে ঢাকাকে সেভাবে সাজিয়েছেন।’ ব্যবসায় রাজনীতিবিদদের আর রাজনীতিতে ব্যবসায়ীদের মুক্ত প্রবেশাধিকার থাকা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

গত শনিবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন এই ব্যবসায়ী নেতা। নৌকা মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যারা আলোচনায় আছেন তাদের মধ্যে আতিকুল ইসলাম শীর্ষে রয়েছেন। ইতোমধ্যে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন এবং আওয়ামী লীগের সভাপতি তাকে সবুজ সংকেত দিয়েছেন বলেও তার দাবি। তার ভিত্তিতে আতিকুল ইসলাম জনসংযোগ করে চলেছেন।

মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া এই সিটির উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে ২৬ ফেব্রুয়ারি। উপনির্বাচন সামনে রেখে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিলি শুরু হয় গত শনিবার। আজ (১৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে মনোনয়নের আবেদনপত্র জমা দেয়ার শেষ সময়। এবার মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের ফি ২৫ হাজার টাকা ধার্য করে দলটি।

গতকাল রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র পদে মনোনয়নপ্রত্যাশী যে ১৩ জন ফরম সংগ্রহ করেন, তারা সবাই সন্ধ্যার আগেই দলীয় কার্যালয়ে গিযে তা জমা দিয়েছেন।

কাল মঙ্গলবার শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হবে। ওই সভায় আগ্রহী প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার নেয়ার পর প্রার্থিতা চূড়ান্ত করা হবে।

২০১৫ সালে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছিলেন ব্যবসায়ী নেতা এবং জনপ্রিয় উপস্থাপক আনিসুল হক। গত ৩০ নভেম্বর তার মৃত্যুতে শূন্য পদটি। গত ৯ জানুয়ারি নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী এই সিটিতে ভোট নেয়া হবে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি।

তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ১৮ জানুয়ারি ও প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৯ জানুয়ারি। প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই করা হবে ২১ ও ২২ জানুয়ারি।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *