185945

সৌদি আরব বদলে যাচ্ছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সৌদি আরবের অভ্যন্তরীণ ও বৈদেশিক নীতিতে কিছু তাত্পর্যপূর্ণ পরিবর্তন এসেছে। আগামী বছরের শুরু থেকেই জনসাধারণকে হলে গিয়ে সিনেমা দেখার অনুমতি দেওয়া হবে বলে সোমবার এক বিবৃতিতে সৌদি আরবের কর্তৃ্পক্ষ জানিয়েছে। ২০১৮ সালের মার্চের মধ্যেই প্রথম সিনেমা মুক্তি পাবে।

১৯৮০’র দশকের শুরুর দিকে ধর্মীয়ভাবে কঠোর রক্ষণশীল দেশ সৌদি আরবে সিনেমা নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। ৩৫ বছরেরও বেশি সময় পর এই প্রথম তা আবার চালু হচ্ছে অর্থাৎ সিনেমার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হচ্ছে।

২০১৮ সালের জুন থেকে সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালাতে দেওয়ার সিদ্ধান্তের পর নারীদের স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার সুযোগ দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেছে সৌদি আরব। সম্প্রতি দেশটির একটি স্টেডিয়ামে প্রথমবারের মতো নারীদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

২০১৬ সালের এপ্রিলে সৌদি সরকার বড় ধরনের অর্থনৈতিক সংস্কার পরিকল্পনা অনুমোদন করে। ‘ভিশন ২০৩০’ নামের এই মহাপরিকল্পনার লক্ষ্য দেশটির তেলনির্ভর অর্থনীতিতে বৈচিত্র্য আনা। তেলের রাজস্বের ওপর নির্ভরশীলতা কমানো। তেলের বাইরে অন্য খাতে ভালো কর্মসংস্থান সৃষ্টি।

২০১৫ সালের ডিসেম্বরে সৌদি আরব প্রথমবারের মতো দেশটির নারীদের প্রার্থী ও ভোটার হওয়ার সুযোগ করে দেয়। সৌদি আরবের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের মুঠোফোন ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

ভিশন ২০৩০-এর অংশ হিসেবে সাড়ে ২৬ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে একটি শহরের পরিকল্পনা করা হচ্ছে, নাম নিওম। শহরটি সম্পর্কে একটা ধারণা দিতে কিছু প্রমোশনাল ভিডিও প্রকাশ করে সৌদি আরব। ভিডিওতে হিজাবহীন নারীদের দেখা যাচ্ছে পুরুষের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজে অংশ নিতে।

রেড সি’তে পর্যটকদের জন্য বিলাসবহুল আবাসনের ব্যবস্থা হচ্ছে, যার অর্থ নারীরা সেখানে বিকিনি পরতে পারবেন, উন্মুক্ত থাকবে বার৷ ২০১৭ সালেই প্রথমবারের মতো রাজধানী রিয়াদের একটি বড় রেস্টুরেন্টে প্রধান শেফ হিসেবে নিয়োগ পান এক নারী।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *