185370

‘বাপের কসম, শরীর ছুঁলে জীবিত ফিরবি না’

উড়োজাহাজে দঙ্গল অভিনেত্রী জায়রা ওয়াসিমের শ্লীলতাহানির অভিযোগ নিয়ে বাদানুবাদ তীব্রতর হচ্ছে। এ ঘটনায় মুম্বাইয়ের একটি বাণিজ্যিক সংস্থার ৩৯ বছর বয়সী সিনিয়র এক্সিকিউটিভ বিকাশ সচদেবকে গ্রেপ্তার করে আদালতে উপস্থাপন করেছে পুলিশ।

অপরদিকে, ১৭ বছর বয়সী অভিনেত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগকে মিথ্যা দাবি করনেওয়ালা সাবেক টিভি সংবাদ উপস্থাপক এবার কড়া জবাব দিয়েছেন। বিকাশের পক্ষাবলম্বনকারী জাগৃতি শুক্লা ফেসবুকে নিজেকে সাবেক সাংবাদিক দাবি করেন। তিনি কাশ্মীরি কন্যা জায়রার অভিযোগকে ‘পাবলিসিটি স্টান্ড’ বলে দাবি করেন।

এর জবাবে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা জাগৃতিকে ট্রোল করা শুরু করে। এই পক্ষের অনেকেই এমন মত প্রকাশ করেন যে জায়রার মতো জাগৃতিও যেন অমন জঘন্য অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন। তবেই তিনি বুঝবেন জায়রার জ্বালা। এদের একজন প্রশ্ন করেন, জায়রার সঙ্গে যা হয়েছে তেমন ঘটনা যদি জাগৃতির সঙ্গে ঘটত তাহলে তিনি কী করতেন?

জবাবে জাগৃতি হুমকির স্বরে বলেছেন- চেষ্টা করে দেখতে পার! বাপের নামে কসম করে বলছি- জীবিত ফিরতে পারবে না। এটা আমার ওয়াদা।

প্লেনে দিল্লি থেকে মুম্বাই ফেরার পথে গত শনিবার জায়রার সঙ্গে তার পেছনের সিটে বসা যাত্রী আপত্তিকর আচরণ করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।

তিনি সামাজিক মাধ্যমে ওই ঘটনার ভিডিও পোস্ট করেন। তবে ওই ভিডিওতে উত্ত্যক্তকারীর মুখ দেখা যায়নি। তিনি জানান, পেছনের ওই যাত্রী নিজের পা তুলে দেন জায়রার আসনের হেলানে। এরপর পা দিয়ে তার ঘাড় পিঠ মর্দন করতে থাকেন। সে তার কনুইতেও টোকা দেয়। প্রতিবাদ করলেও পেছনের ওই যাত্রী পাত্তা দেয়নি। তিনি এ সময় এয়ারলাইন্স ক্রুদের সাহায্য চাইলেও কোনো প্রতিকার পাননি বলে জানান।

জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী জায়রা সামাজিক মাধ্যমে বলেন, আমার পেছনে মধ্যবয়সী এক যাত্রী বসেছিল। সে আমার দুই ঘণ্টার সফর ভয়াবহ করে তুলেছে। আমি ফোনে পুরো ঘটনা রেকর্ড করার চেষ্টা করি। কিন্তু কম আলোর কারণে সেটা করা সম্ভব হয়নি।

পরে ওই ভিডিও প্রকাশ পাওয়ার পরে ভিস্তারা নামের এয়ারলাইনার কম্পানির কর্তারা তার সঙ্গে দেখা করে ক্ষমা চান এবং পুলিশ গ্রেপ্তার করে আদালতে পেশ করে অভিযুক্ত বিকাশকে। তবে বিকাশ নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেছেন, একটি শেষকৃত্যে অংশগ্রহণ শেষে তিনি দিল্লি থেকে মুম্বাই ফিরছিলেন। ওই সময় খুব ক্লান্ত থাকায় তিনি ঘুমাতে চেয়েছিলেন তাই প্লেনের ক্রুদের বলেছিলেন তাকে যেন কেউ বিরক্ত না করে। তবে ঘুমের ঘোরে তার পা সামনের যাত্রীর ঘাড় স্পর্শ করেছে বুঝতে পেরে তার কাছে ক্ষমাও চেয়ে নেন। বিকাশের স্ত্রীও স্বামীর পক্ষ নিয়ে বলছেন, তিনি নির্দোষ।

এদিকে, জম্মু ও কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে বলেছেন- নারীদের হেনস্তার দ্রুত সুরাহা হওয়া উচিত। জায়রার সঙ্গে যা হয়েছে তাতে দুই কন্যার মা হিসেবে আমিও আজ আতঙ্কিত।

মহারাষ্ট্র মহিলা কমিশন এ ঘটনাকে ‘লজ্জাজনক’ বলে আখ্যা দিয়েছে।
সূত্র : এনবিটি, জনসত্তা,কালের কণ্ঠ

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *