184667

এবার বাপ্পির সঙ্গে প্রেম নিয়ে মুখ খুললেন অপু

কিছুদিন থেকেই শাকিব-অপু দম্পতিকে ঘিরে যে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল, অবশেষে সেটাই যেন পূর্ণতা পেতে যাচ্ছে। কারণ শাকিব খান অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠিয়েছেন। অপুকে ডিভোর্সের কারণ হিসেবে নোটিশে শাকিব খান অভিযোগ করেছেন, অপু তার ছেলেকে কাজের লোকের কাছে রেখে ‘কথিত বয়ফ্রেন্ড’কে নিয়ে ভারতে বেড়াতে গিয়েছেন। আর অপু তার কোনো নির্দেশই মেনে চলেন না। তাই তিনি বিবাহ বিচ্ছেদ চান।

কিন্তু কে সেই বয়ফ্রেন্ড? এমন গুঞ্জনে চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরীর নাম আসছে। আর এই কথিত বয়ফ্রেন্ডকে নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন অপু বিশ্বাস। কথিত বয়ফ্রেন্ড প্রসঙ্গে বিস্ময়পূর্ণ কণ্ঠে অপু বিশ্বাস বলেন, আর কথিত বয়ফ্রেন্ড বলে নায়ক বাপ্পিকে ঘিরে আমাকে নিয়ে যে মন্তব্য করা হচ্ছে এটা শুনে আমি বিস্মিত। আমি একা ভারতে চিকিৎসকের কাছে গিয়েছিলাম। কোনো বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে না। এটা কেন সাজানো হচ্ছে আমি জানি না। এটার প্রমাণ কি শাকিব খান দিতে পারবেন? আর বাপ্পির কথা এখানে কিভাবে এলো। বাপ্পি তো আমার জুনিয়র। আমাকে দিদি ডেকে সে সবসময়ই সম্মান করে।

এদিকে এরইমধ্যে ডিভোর্সের কাগজটি অপু বিশ্বাস হাতে পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন। এ চিঠি পাওয়ার পর তার পদক্ষেপ কী হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি একটু সময় নিচ্ছি। আর একজন আইনজীবীর পরামর্শ নিয়ে একটা সংবাদ সম্মেলন করে সাংবাদিকদের সামনে হাজির হব। হুটহাট করে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে চাই না। আমি এদেশের একজন প্রথম শ্রেণির নাগরিক। আমার সঙ্গে কোনো অন্যায় হবে এটা আমি মানতে পারি না। যদি আমার সঙ্গেই অন্যায় হয় তাহলে আমাদের যারা আইডল মনে করে বা অনুসরণ করে চলে তারা লাইফে কতটুকু হ্যাপি হতে পারবে। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমি আবেদন জানাব। আমার আবেদনের ভাষায় থাকবে, তিনি একজন মেয়ে। আর তিনি সহনশীল এবং হৃদয়বান প্রধানমন্ত্রী। একটা মেয়ের সঙ্গে অন্যায় বা অবিচার হবে এটা নিশ্চয়ই তিনি চাইবেন না। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে সহযোগিতা কামনা করছি।

উল্লেখ্য, ভারতের হায়দরাবাদের রামুজি ফিল্ম সিটিতে এখন রাশেদ রাহা পরিচালিত ‘নোলক’ ছবির শুটিং করছেন শাকিব খান। সেখানে যাওয়ার আগেই তিনি ডিভোর্স লেটারে স্বাক্ষর করেন। এরপর শাকিবের পক্ষ থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন মেয়রের কার্যালয়, অপু বিশ্বাসের ঢাকার নিকেতনের বাসা এবং বগুড়ার ঠিকানায় ওই ডিভোর্সের নোটিস পাঠানো হয়। এই ডিভোর্স কার্যকর হবে নোটিস পাঠানোর তারিখ থেকে তিন মাস পর।

ad

পাঠকের মতামত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *